শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » গাছ চাপায় নবীগঞ্জে শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু: শোকের মাতম

গাছ চাপায় নবীগঞ্জে শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু: শোকের মাতম

সিলেট রিপোর্ট: নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের বেতাপুর গ্রামে শাহ জুয়াদ মৎস্য প্রকল্পের এক শ্রমিকের গাছ চাপায় মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। কুর্শী ইউনিয়নের দুর্লভপুর গ্রামের মৃত জহুর আলীর পুত্র ও ৭ সন্তানের জনক মোঃ কাদির মিয়া (৫০)। ঘটনাটি ঘটেছে  সোমবার বেলা অনুমান আড়াইটার দিকে। খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ প্রায় ৪ঘন্টা পরে এসে লাশ উদ্বার করেছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারে চলছে শোকের মাতম। অপরদিকে এলাকার শত শত শোর্কাত জনতার লাশ দেখার জন্য প্রচন্ড ভীড় জমে উঠে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গাছ চাপায় কাদির মিয়ার করুন দশা। সকাল থেকে ৬/৭জন শ্রমিক মিলে ওই মৎস্য প্রকল্পের উত্তর পার্শ্বে একটি বড় পাহাড়ি জাতীয় সাম্বল গাছ কাটার সময় উল্লেখিত সময়ে গাছটি কাটার শেষ সময়ে গাছের মাঝামাঝি স্থানে ওই শ্রমিক গিয়ে গাছ সরানোর চেষ্টা করলে উপর থেকে গাছের অরেকটি অংশ তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই আটকা পড়ে তার মাথার মগজ তেতলে যায়। এতে তার ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়। সংবাদ পেয়ে নবীগঞ্জ থানার এস আই নজরুল ইসলাম লাশ উদ্বার করেন। অপরদিকে আউশকান্দি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো: দিলাওর হোসেন, নবীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান সমিতির সাধারন সম্পাদক ও কুর্শি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈয়দ খালেদুর রহমান, আউশকান্দি ইউপি মেম্বার বদরুল ইসলাম বকুল সহ এলাকার শত শত জনতার ভীড় জমে উঠে। এ ঘটনায় নিহতের আত্মীয় স্বজনদের সম্মতিক্রমে চেয়ারম্যান দিলাওর হোসেন ও সৈয়দ খালেদুর রহমানের মধ্যস্থতায় আপোষে ময়না তদন্ত ছাড়াই এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত লাশ দাপনের প্রক্রিয়া চলছে। এ ব্যাপারে মৎস্য প্রকল্পের পরিচালক শাহ মুস্তাকিম আলী প্রিন্স এর সাথে আলাপকালে তিনি জানান, নিহত ব্যক্তি দীর্ঘ ১০ বছর ধরে খুবই সুনামের সহিত বিশ্বস্ততার সাথে তার কর্ম পরিচালনা করে আসছিল ওই প্রকল্পে। এবং তার এই করুন মৃত্যুতে তিনি ও তার পরিবার গভীর শোকাহত। তবে, তার স্ত্রী সন্তানদের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে অবশ্যই ওই পরিবারের পাশে আছি ও ভবিষ্যতে থাকবো। ঘটনাস্থলে থানা পুলিশে দেরিতে আসায় স্থানীয় জনতার মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সঞ্চার হয়

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now