শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » মাদরাসাছাত্র হত্যা: পুলিশের উসকানিমূলক ভূমিকা কাম্য নয়

মাদরাসাছাত্র হত্যা: পুলিশের উসকানিমূলক ভূমিকা কাম্য নয়

Editorial20151120021340 Editorial.sylhetreportসিলেট রিপোর্ট:   গত সোমবার  ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে ব্যাপক সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। ছাত্রলীগ ও পুলিশ সদস্যরা মাদরাসায় ঢুকে ছাত্রদের নির্যাতন করেছে। একজন ছাত্রের শরীরে গুলির চিহ্নও ছিল। ছাত্রহত্যার ঘটনার পর মাদরাসাছাত্ররা ও স্থানীয় বিক্ষুব্ধ মানুষ শহরে ক্ষমতাসীন দলের অফিস, রেলস্টেশন, যানবাহনসহ বিভিন্ন স্থানে ভাঙচুর চালিয়েছে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হঠাৎ এমন সহিংস ঘটনা কেন ঘটল, তা গভীরভাবে পর্যালোচনার দাবি রাখে। শহরে একজন ছাত্রের সাথে সামান্য বিরোধের পর পুলিশ এবং সেই সাথে ক্ষমতাসীন দলের অঙ্গসংগঠন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মাদরাসার ভেতরে ঢুকে ছাত্রদের ওপর নির্যাতন চালানোর এই ঘটনা স্বাভাবিকভাবে ছাত্রদের বিক্ষুব্ধ করেছে। আমাদের সমাজে দুঃখজনকভাবে যে বিভক্তি ও বিভাজন চলছে তাতে মাদরাসাছাত্রদের নানাভাবে নির্যাতন-নিপীড়ন করা এবং ভিন্ন চোখে দেখার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। মাদরাসার ছাত্র ও শিক্ষকদের পক্ষ থেকে সুস্পষ্টভাবে কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে উসকানির অভিযোগ আনা হয়েছে বি.বাড়িয়ার ঘটনায়। তারা বলছেন, পুলিশের ছত্রছায়ায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মাদরাসায় ঢুকে নির্যাতন চালিয়েছে।
এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শহরের বিভিন্ন স্থানে যেসব হামলা, অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে, তা-ও কোনোভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়। সেখানে সব পক্ষের সংযম ও ধৈর্যের পরিচয় দেয়া উচিত ছিল। তবে এসব ঘটনার জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অবশ্যই দায় নিতে হবে। কারণ তারা পুরো পরিস্থিতি শুধু নিয়ন্ত্রণ করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়নি, মাদরাসায় হামলা এবং ছাত্রদের ওপর নির্যাতন চালিয়ে পরিস্থিতিকে অত্যন্ত জটিল করে তুলেছে। এমনকি মাদরাসার বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। ফলে মানুষের ক্ষোভ আরো বেড়েছে।
এখানে একটি বিষয় স্পষ্ট, মাদরাসার ছাত্র, শিক্ষক কিংবা দেশের ধর্মভীরু মানুষের ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন খুবই জরুরি। মাদরাসাছাত্র মাত্রই অপরাধী, এ ধরনের অমূলক দৃষ্টিভঙ্গির প্রকাশ ঘটছে আচরণে। একইভাবে কিছু অতি উৎসাহী পুলিশ কর্মকর্তা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের ব্যাপারে নানা ধরনের নেতিবাচক বক্তব্য দিয়ে আসছেন। এটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। আশার কথা, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনার পর সরকারের ঊর্ধ্বতন মহলের হস্তক্ষেপে পুলিশের বিতর্কিত দুই কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে সাথে সাথে। অপর দিকে, মাদরাসাছাত্র ও শিক্ষকদের পক্ষ থেকে ঘোষিত হরতাল প্রত্যাহার করা হয়েছে। আমরা মনে করি, এই অনাকাক্সিত ঘটনার পেছনের কারণ অনুসন্ধান করে ছাত্রহত্যার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে অবিলম্বে।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now