শীর্ষ শিরোনাম
Home » মিডিয়া » ৫৪তম জন্মদিন:: কবি মুহিত চৌধুরী: কালের যাত্রায় আলোর উৎস

৫৪তম জন্মদিন:: কবি মুহিত চৌধুরী: কালের যাত্রায় আলোর উৎস

আব্দুল মুকিত অপি: বাংলা ভাষার পাঁচ হাজার বছরের উত্তরণের ঘাটে ঘাটে, আধুনিকতার সুরভিত মঞ্চে দাঁড়িয়ে দেখছি আমরা দ্বান্ধিক উত্তরাধুনিকতা। আমাদের এই দৃষ্টিতে, কালের যাত্রায় ক্রমান্বয়ে আমরাই সত্যবান, আলোর উৎস। কবি মুহিত চৌধুরী এই চক্রবালে কখনো পরিবর্তিত নয়, আপন বলয়ে দৃঢ়তার বিভায় সদা হাস্যময়। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থগুলো সে সত্যকে প্রদীপের আলোয় উদ্ভাসিত করে। আমরা দেখেছি ভাবনার বিচিত্র এবং মৌলিক চয়নে লঘুতার দীর্ঘশ্বাস, অসুন্দরের আশুদ্ধ পরাজয়-সুন্দরের কাছে। দীর্ঘ তিন দশকে মুহিত চৌধুরীর নির্লোভ নন্দনচর্চা সেই উত্তরণেরই একটি সমীহ স্বাক্ষী।
মুহিত চৌধুরী নিজেকে নিয়ে, লেখালেখি, পাঠজ্ঞানসহ সার্বিক আঙিনায় বিশ্বস্ত।

আমেরিকার তুফান জীবনে সাহিত্যের দখিনা হাওয়া উড়িয়ে এসেছেন তিনি । ‘হাসন রাজা লোকসাহিত্য সম্মেলন’ আয়োজনে কিংবা ত্রৈমাসিক বাংলা ম্যাগাজিন ‘শিকড়’ প্রকাশ করে এবং সাহিত্যের নানান অনুষ্ঠানে প্রাণবন্ত নিউয়র্ক রাঙিয়ে নব্বুই দশকে আমেরিকায় সবচেয়ে আলোকিত ‘বাংলা প্রতিভা’য় রূপ দিয়েছিলেন নিজেকে । সাহিত্য-সংস্কৃতি র্চ্চার পাশাপাশি  সাংবাদিকত্ওা করেছেন পুরোদমে। কিন্তু তারপরও মাটির ঘ্রাণের সুদূরের টান অনুভব করেন সারাক্ষণ, সারা আয়োজনে।
এবং মধুসূদনের মতো ‘পর-ধর-লোভে মত্ত, করিনু ভ্রমণ/ পরদেশ, ভিক্ষাবৃত্তি কুক্ষণে আচরি’- উচ্চারণ করে বাংলার আম-জাম-জারুল-কদম এবং শালিকের কাছে চলে এলেন। কিংবা সর্বোপরি আমাদের কাছে, এই বাংলাদেশে।
এখন তিনি তার জীবনের দীর্ঘ ক্রমান্বিকতায় একজন কবি, সাংবাদিক, ঔপন্যাসিক, গীতিকার, ন্যাট্যকার, একজন মুহিত চৌধুরী। এপর্যন্ত কবি মুহিত চৌধুরীর ৯টি বই বেরিয়েছে।
এগুলো হচ্ছে: ১. প্রতিশোধ নেব না (নাটক), ২.সানাই কথা বললো না (কবিতা),৩.নির্লেজ্জর লজ্জা (কবিতা),৪. আমেরিকায় বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি (গবেষণা), ৫. যদি ভালোবাসা মরে যায় (কবিতা), ৬.সহজ হজ্জ্ব গাইড(ধর্ম বিষয়ক),৭. ফিরে আসা (উপন্যাস), ৮.কসম সিনাই পর্বতের (কবিতা), ৯.পাখি গেলে পোকার বাস (গীতি সংকলন)।

কবি মুহিত চৌধুরী গীতি সংকলন প্রসঙ্গে বিশিষ্ট গবেষক প্রফেসর নন্দলাল শর্মা বলেছেন-
\’সিলেট হল গানের স্বপ্নরাজ্য। এই রাজ্যে এখনও বিচরন করছেন মরমী ফকির। সংসার বিবাগী না হয়েও অনেকে মরমী রাজ্যে বিচরণ করে আমাদের সংগীত জগতকে সমৃদ্ধ করেছেন। একুশ শতকে এসেও মরমী গানের ধারা সিলেটে সজীব ও প্রবাহমান। এ ধারার একজন উল্লেযোগ্য গীতিকবি মুহিত চৌধুরী। কবি গীতিকার-ঔপন্যাসিক-নাট্যকার-গবেষক ও সম্পাদক নানা পরিচয় তাঁর। দীর্ঘকাল ধরে তিনি গান লিখেছেন। মরমীগান, পল্লীগীতি আধুনিক প্রভৃতি বিচিত্র ধরনের গান তিনি সমান দক্ষতায় লেখেন।
বাংলাদেশ বেতারের তিনি একজন প্রসিদ্ধ গীতিকার ও নাট্যকার।\’ ১৯৯৫ সালে একটি মানবতাবাদী কবিতা লিখে যুক্তরাষ্ট্রের \’দ্যা ন্যাশনাল লাইব্রেরী অব পোয়েট্রি\’ থেকে তিনি এডিটর চয়েজ এওয়ার্ড পান। কবির পরিচিতসহ কবিতাটি ন্যাশনাল লাইব্রেরী তাদের \’স্পার্কলেস\’ ইন দ্যা সেন্ড\’ নামক বিশাল কাব্য সংকলনে প্রকাশ করে।

এ সময়ে মুহিত চৌধুরীর সবচেয়ে আলোচিত এবং উল্লেখযোগ্য দিকটি হলো অনলাইন সাংবাদিকতা।
জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল দৈনিক সিলেট ডটকম-এর সম্পাদক তিনি। বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন (বনপা)-এর তিনি কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি।
অনলাইন গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিকদের স্বার্থ সংরক্ষণ এবং পেশাগত মান বৃদ্ধির লক্ষে ২০১১ সালের ১৮ নভেম্বর তাঁর উদ্দোগে অনলাইন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন(ওজাস) গঠন করা হয়। আর এটি ছিলো বাংলাদেশের প্রথম অনলাইন ভিত্তিক সাংবাদিকদের সংগঠন।
প্রায় ৩ বছর তিনি সংগঠনটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তাঁর বলিষ্ট নেতৃতে সিলেটে অনলাইন সাংবাদিকতা শুনামের এগিয়ে যেতে থাকে। এর মধ্যে সিলেটে আত্মপ্রকাশ করে অনেকগুলো অনলাইন নিউজ পোর্টাল। আর অনলাইন গণমাধ্যমও অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে ওঠে পাঠকদের কাছে।
মুহিত চৌধুরী এবার হাত দেন অনলাইন গণমাধ্যমে কর্মরত সিলেটের সাংবাদিকদের আরো বৃহত্তর পরিসরে নিয়ে যাবার কাজে। ২০১৪ সালের ৮জুলাই গঠন করেন সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাব। খুব শীঘ্রই মধুবন সুপার মার্কেটে সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের অফিস আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হবে।

২ নভেম্বর কবি মুহিত চৌধুরীর ৫৪তম জন্মদিন। তাঁর ব্যাপ্তিময় জীবনক্ষেত্রের সফলতা এবং তাঁর প্রতি ভালোবাসার পরাগ সবময়ের।
মুহিত চৌধুরী দীর্ঘজীবি হোন এবং তার কর্ম হউক সূর্যের মতো ক্রমশ উজ্জ্বল এবং দীপ্তিময়।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now