শীর্ষ শিরোনাম
Home » সিলেট » প্রধানমন্ত্রী বরাবরে সিলেট জেলা আনসার পিসিদের স্মারকলিপি প্রদান ও মানববন্ধন

প্রধানমন্ত্রী বরাবরে সিলেট জেলা আনসার পিসিদের স্মারকলিপি প্রদান ও মানববন্ধন

 

Untitled-1সিলেট রিপোর্ট: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে সিলেটের জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে সিলেট জেলা আনসার কমান্ড্যান্ট আশীষ কুমার ভট্টাচার্য, সদর উপজেলা কর্মকর্তা আবু সাহাদাৎ মোহাম্মদ এনামুল হক, গোলাপগঞ্জ উপজেলা কর্মকর্তা জসীম উদ্দিন, বডিগার্ড বেলাল, কম্পিউটার অপারেটর মিনহাজ ও ড্রাইভার শাহ আলম এর বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে গত ১৯ এপ্রিল মঙ্গলবার একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন জেলা আনসার সদস্য ও পিসিগণ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, পিসি ইকবাল হোসেন, পিসি মহিবুল ইসলাম, পিসি হাবিব, পিসি আব্দুন নূর, পিসি রুহুল আমিন ও আনসার সদস্যদের মধ্যে মোঃ সোহেল, ছুয়াব হোসেন, মহিবুল ইসলাম, রুনা বেগম, সুফা বেগম, রকিব, নূর বানু বেগম, শহিদুল ইসলাম, সুজিৎ সিং, কালু মিয়া প্রমুখ।
স্মারকলিপিতে পিসি ও আনসার সদস্যগণ উল্লেখ করেন দায়িত্বপ্রাপ্ত সিলেট জেলা আনসার কমান্ড্যান্ট আশীষ কুমার ভট্টাচার্য, সদর উপজেলা কর্মকর্তা আবু সাহাদাৎ মোহাম্মদ এনামুল হক, গোলাপগঞ্জ উপজেলা কর্মকর্তা জসীম উদ্দিন, বডিগার্ড বেলাল, কম্পিউটার অপারেটর মিনহাজ ও ড্রাইভার শাহ আলম সহ এদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে বিগত ০৭/০২/২০১৬ এবং ২৮/০৩/২০১৬ইং তারিখে মহাপরিচালক-আনসার ভিডিপি সদর দপ্তর ঢাকা, ¯^রাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়, সিলেটের জেলা প্রশাসক এবং বিভিন্ন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা বরাবররে লিখিত অভিযোগ করা হয় সহ গত ৪ এপ্রিল নগরীর কোর্ট পয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এসব কর্মসূচীর ছবি সহ সংবাদ স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। এতে আমাদের সিলেটের জেলা আনসার ও ভিডিপি অফিসের মান মর্যাদা ক্ষুণœ হচ্ছে। এতদসত্বেও উল্লেখিত অভিযোগের ভিত্তিতে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় নাই। আমরা শেষ ভরসা স্থল হিসেবে আপনার বরাবরে অভিযোগ প্রেরণ করলাম। আপানি অনুগ্রহপূর্বক এই দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সিলেটে থেকে অপসারণ সহ আইনানুগ বিহিত ব্যবস্থা গ্রহণে কৃতার্থ করবেন।
এছাড়াও অভিযুক্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ সাধারণ আনসার মৌলিক প্রশিক্ষণার্থীদের নিকট থেকে জনপ্রতি ৩০ হাজার টাকা উৎকোষ গ্রহণ করে তাদের পরিচিত ¯^জনদের নিয়োগ দিয়ে বাকী সদস্যদের টাকা আত্মসাত করে। এই আত্মসাতকৃত টাকা উদ্ধার, ঘুষখোরদের সিলেট থেকে প্রত্যাহার ও নতুন করে প্রশিক্ষণার্থী নেওয়ার দাবীতে ভুক্তভোগী আনসার সদস্যরা জেলা আনসার ভিডিপি কার্যালয়ের সামনে গত ১৮ এপ্রিল মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, মোঃ সোহেল, ছুয়াব হোসেন, মহিবুল ইসলাম, রুনা বেগম, সুফা বেগম, রকিব, নূর বানু বেগম, শহিদুল ইসলাম, সুজিৎ সিং, কালু মিয়া প্রমুখ।
বিগত ২০১৫ সালের দূর্গাপূজার ডিউটির টাকা সহ গত ২২ মার্চ ২০১৬ইং তারিখের সদ্য সমাপ্ত হওয়া সিলেট সদর ইউপি নির্বাচনে আমরা ডিউটি করি। আমাদেরকে জন প্রতি ১২০০/- (বারশত) টাকা করে দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গত ২৬ মার্চ ২০১৬ইং তারিখে আমাদেরকে আখালিয়া আনসার ও ভিডিপি অফিসে ডেকে এনে জন প্রতি ৪০০/- চারশত টাকা প্রদান করে। কিন্তু আমরা উক্ত টাকা গ্রহণ না করে জেলা কমান্ড্যান্ট আশীষ কুমার ভট্টাচার্য সাহেবকে জানাই। উনি আমাদেরকে বলেন, সদর উপজেলা কর্মকর্তা আবু সাহাদাৎ মোহাম্মদ এনামুল হক ও গোলাপগঞ্জ উপজেলা কর্মকর্তা জসীম উদ্দিন অফিসার যা দিবে তা নিয়ে যাও। নইলে তোমাদেরকে চাকুরী শেষ করিয়া দিব নতুবা পুলিশে ধরাইয়া দিব। এরপর আমাদেরকে গেইট হতে রানা বেলাল, ড্রাইভার শাহ আলম ও মিনহাজ এবং ব্যাটালিয়ানের লোকেরা আমাদেরকে খারাপ ভাষায় গালিগালাজ করে এবং আমাদেরকে টানাহেচড়া করে গেইটের ভেতর থেকে বাহির করে দেয়। আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে তাই আমরা নিরুপায় ও অসহায় হয়ে আপনার স্মরণাপন্ন হলাম। আপনি অনুগ্রহপূর্বক তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থাগ্রহণ ও আমাদের আত্মসাতকৃত ডিউটির টাকা, চাকুরী দেওয়ার নামে উৎকোষের টাকা তাদের নিকট হতে উদ্ধার করা সহ অবিলম্বে অসৎ, দুর্র্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।
প্রকাশ থাকা আবশ্যক যে, নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত জেলা আনসার কমান্ড্যান্ট আশীষ কুমার ভট্টাচার্য, সদর উপজেলা কর্মকর্তা আবু সাহাদাৎ মোহাম্মদ এনামুল হক, গোলাপগঞ্জ উপজেলা কর্মকর্তা জসীম উদ্দিন সিলেটে যোগদান করার পর বিশেষ কায়দা অবল¤^ন করে অভিযুক্ত তিন কর্মকর্তা সিলেট জেলার সহজ, সরল আনসারদের নিকট হতে গণহারে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। তাদের সহযোগি হিসেবে কাজ করছেন পিয়ন হাবিব, রানা বেলাল, ড্রাইভার শাহ আলম এবং কম্পিউটার অপারেটর মিনহাজ।
সিলেটের অংগীভুত পিসি, এপিসি এবং অফারের কর্তৃত্ব আনসারদের নতুন জেলা কমান্ড্যান্ট এর সাথে সা¶াত করার জন্য জেলার সহজ সরল আনসারদের নিকট হতে গণহারে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। অভিযুক্তরা সহযোগিরা দাবী করেন, নতুন জেলা কমান্ড্যান্ট আশীষ কুমার স্যারের সাথে দেখা করতে হলে ফি বাবত তোমাদেরকে অফারের লোক ১৫ (পনের হাজার) টাকা এবং অংগীভ‚ত সাধারণ আনসারদেরকে ১ (এক হাজার) টাকা করে দিতে হবে। আমরা জেলা কমান্ড্যান্ট স্যারের এহেন কর্মকান্ডের প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এ ব্যাপারে সচেতন আনসার সদস্যগণ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণের জোরদাবী জানান।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now