শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত স্থগিত করা না হলে অবস্থান ধর্মঘট সহ কঠোর কর্মসূচী ——- লেঃ কর্ণেল (অব.) আতাউর রহমান পীর

গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত স্থগিত করা না হলে অবস্থান ধর্মঘট সহ কঠোর কর্মসূচী ——- লেঃ কর্ণেল (অব.) আতাউর রহমান পীর

সিলেট রিপোর্ট: প্রস্তাবিত গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত অবিলম্বে প্রত্যাহার, ত্র“টিপূর্ণ বিদ্যুৎ মিটার ও ভৌতিক বিল নিয়ে দুর্নীতি বন্ধের দাবীতে  শনিবার বিকেলে  সিলেট কোর্ট পয়েন্টে গ্যাস-বিদ্যুৎ গ্রাহক কল্যাণ পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে এক বিরাট গণসমাবেশ লেঃ কর্ণেল (অব.) অধ্যক্ষ আতাউর রহমান পীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। গণসমাবেশে কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রাজনীতিবিদ মকসুদ হোসেন বলেন, প্রস্তাবিত গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত অবিলম্বে স্থগিতকরণ, ত্র“টিপূর্ণ বিদ্যুৎ মিটার ও ভৌতিক বিল নিয়ে দুর্নীতি বন্ধের লক্ষ্যে সরকারের এ ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত গণমাধ্যমে না আসায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, গ্যাস খাতে সরকারের ভুর্তুকি দিতে হয় না। গড়ে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিচ্ছে পেট্রোবাংলা। এ অবস্থায় কেন এ দাম বৃদ্ধি তা রহস্যজনক। তাছাড়া গ্যাসের উৎপাদন খরচ বাড়েনি, গ্যাস খাতে উন্নয়ন তহবিলে যে টাকা জমা হচ্ছে সেখান থেকে এই উন্নয়ন করা সম্ভব। প্রায় ২৭ লাখ গ্রাহকের স্বার্থে এই অযৌক্তিক দাম বৃদ্ধি কোন ভাবেই কাম্য হতে পারে না।
সরকার ভুর্তুকির অজুহাত দেখিয়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির চক্রান্ত করছেন। অথচ সরকার ৬ বার বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করেছেন। গ্রাহকদের পিঠ আজ দেওয়ালে ঠেকেছে। স্বল্প সৎ গ্রাহকগণ এ ব্যাপারে ভীষন উদ্বিগ্ন। প্রাপ্ত তথ্য মতে ৬ বছরে বিদ্যুত খাতে কুইক রেন্টালেই ভুর্তুকি দিতে হয়েছে ৪১ হাজার কোটি টাকা। অর্থের অভাবের কথা বলে বেসরকারী খাতে বিদ্যুৎ সেক্টর তুলে দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে এই খাতের অর্থ ও সরকারকে যোগাড় করে দিতে হচ্ছে। পাশাপাশি সার্বভৌম গ্যারন্টি দিতে হচ্ছে। অর্থাৎ যেই লাউ সেই কদু। প্রয়োজনে সকল বেসরকারী বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র সরকারের নিয়ন্ত্রণে নেয়ার দাবী জানিয়ে বক্তারা বলেন, দুর্নীতির মাধ্যমে হাজার হাজার কোটি  টাকা লুটপাটকারীদের অর্থ উদ্ধার করে বিদ্যুৎ ও গ্যাস খাতে ভুর্তুকি দেয়া আজ গণদাবীতে পরিণত।
সভাপতির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় আহবায়ক লেঃ কর্ণেল (অব.) অধ্যক্ষ আতাউর রহমান পীর বলেন-গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত গণবিরোধী। এই প্রক্রিয়া থেকে সরকারকে অবিলম্বে সরে আসতে হবে। অন্যথায় পরিনাম কি হবে তা আল্লাহপাকই জানেন। এই গণবিরোধী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সিলেটের ন্যায় নারায়ণগঞ্জ, দিনাজপুর, বৃহত্তর ময়মনসিংহের শেরপুর সহ সারাদেশে গ্রাহকগণ আজ ঐক্যবদ্ধ হচ্ছেন। তিনি বিদ্যুৎ ও গ্যাস গ্রাহকদের উদ্দেশ্যে বলেন, নেতা-নেত্রীর দিকে তাকিয়ে লাভ নেই আল্লাহর উপর ভরসা করেই সরকারের এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত প্রতিবাদ করা ফরজের সমতুল্য। তিনি হুশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন অবিলম্বে এই প্রক্রিয়া স্থগিতকরণ করতে হবে। অন্যথায় দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হলে অবস্থান ধর্মঘট সহ কঠোর কর্মসূচী সিলেট থেকে ঘোষণা করা হবে ইনশাআল্লাহ।
কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ মকসুদ হোসেনের পরিচালনায় গণসমাবেশে বক্তব্য রাখেন-পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক আজিজুল মালিক চৌধুরী এডভোকেট, যুগ্ম আহবায়ক নাসির উদ্দিন এডভোকেট, ইকবাল হোসেন চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সদস্য আখলাক আহমদ চৌধুরী, অধ্যাপক শফিকুর রহমান, সমাজসেবক মইন উদ্দিন আহমদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সদস্য আব্দুল মান্নান পুতুল, দেওয়ান মাসুদ রাজা চৌধুরী, সাংবাদিক আমিরুল ইসলাম চৌধুরী এহিয়া, এম বরকত আলী, শ্রমিক নেতা ই্উনুছ মিয়া, সিলেট বিভাগীয় ছাত্র পরিষদের সভাপতি বদরুল হোসেন খান কামরান, জাগো সিলেট আন্দোলনের নেতা আলাউদ্দিন আলো, রফিকুল ইসলাম সিতাব, মাদানী কাফেলার সভাপতি মাওলানা রুহুল আমীন নগরী, ছাত্র ও যুব কল্যাণ ফেডারেশনের চেয়ারম্যান এইচ এম আব্দুর রহমান, জালালাবাদ প্রবাসী কল্যাণ নেতা সেলিম আহমদ চৌধুরী, সিলেট গণদাবী নেতা ডা: হাবিবুর রহমান, সংগঠক মাওলানা আছলাম রহমানী, শাহিদুর রহমান জুনু, আব্দুল মোতাওয়াল্লী ফলিক, সৈয়দ বদরুল আলম, রফিকুল ইসলাম সেনাজ, যুব সংগঠক ইসলাম আলী, মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী, মাওলানা আব্দুল করিম দিলদার, শেখ মো: দীপু, শহিদুজ্জামান আলো, তরুণ ব্যবসায়ী আব্দুল আহাদ সুমন, শ্রমিক নেতা বাবুল আহমদ, শাহাব  উদ্দিন আহমদ প্রমুখ।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now