শীর্ষ শিরোনাম
Home » রাজনীতি » ৯ পৌরসভায় নির্বাচন: ফলাফলকে অশনি সংকেত বলছে বিএনপি

৯ পৌরসভায় নির্বাচন: ফলাফলকে অশনি সংকেত বলছে বিএনপি

bnp_114141ডেস্ক রিপোর্ট: নয় পৌরসভা নির্বাচনে একটিতেও জয় পায়নি বিএনপি। সাত জেলার এ নির্বাচনের সাতটিতে জিতেছে আওয়ামী লীগ। বাকি দুটিও কার্যত আওয়ামী লীগের ঘরেই ঘরেই এসেছে। এই দুটিতে জিতেছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা।

বিএনপির ফলাফল শূন্য। একটিতেও জিততে পারেননি দলটির প্রার্থীরা। তবে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের দাবি, তাদেরকে আসলে জিততে দেয়া হয়নি। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান ঢাকাটাইমসকে বলেন, এই ফলাফল বিএনপির জন্য বিব্রতকর নয়, এটা বাংলাদেশের জন্যই অশনি সংকেত। ২০১৪ সালে একদলীয় নির্বাচনের ধারাবাহিকতায় বিরোধীদেরকে ভোটে টিকতেই দিচ্ছে না সরকার। এটা গণতন্ত্রের জন্যও কোনওভাবেই ভালো নয়।

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘সরকারি দল নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করছে আর তাতে সহযোগিতা করছে নির্বাচন কমিশন। সুষ্ঠু নির্বাচন করতে তারা বারবার ব্যর্থ হচ্ছে। কেন তারা সরকারের আজ্ঞাবহ হয়ে কাজ করছে, বুঝে আসছে না’।

এক প্রশ্নের জবাবে মাহবুবুর রহমান বলেন, এখন তো দলের মধ্যে আলোচনা হচ্ছে, ২০১৪ সালের নির্বাচনে না যাওয়াই ঠিক ছিল। কারণ এখন তো নির্বাচনে গেলেও কাজ হচ্ছে না।

তবে মাহবুবুর রহমানের এই অভিযোগ মানতে নারাজ আওয়ামী লীগের আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নূহ উল আলম লেনিন। তিনি ঢাকাটাইমসকে বলেন, জনগণ বিএনপিকে এখন আর ভোট দেয় না। তারা বিএনপির উপর আস্থা পায় না। এ কারণেই তারা পরাজিত হয়। আর হেরে গেলেই ভোটে কারচুপির অভিযোগ তোলে বিএনপি।

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, কেবল হারলে নয়, জিতলেও কারচুপির অভিযোগ তোলার প্রবণতা আছে বিএনপির। পাঁচটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দিনও দিনভর নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার আর কারচুপির ঢালাও অভিযোগ তুলেছিল তারা। কিন্তু ফলাফল পক্ষে যাওয়ার পর চুপসে যায় তারা।

বুধবার নয় পৌরসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণায় দেখা যায়, ভোটের হিসাবে কোনোটিতেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে পারেননি ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থীরা। যদিও এর বেশ কিছু এলাকায় এর আগের নির্বাচনগুলোতে ভালো করেছিলেন দল সমর্থিত প্রার্থীরা।

বিএনপি অভিযোগ করেছে, ভোট জালিয়াতি ও কেন্দ্র দখল অবাধে হয়েছে এবং নির্বাচন কমিশন তা ঠেকাতে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

ফেনীর ছাগলনাইয়া ও নোয়াখালী পৌরসভায় বিএনপির দুই প্রার্থী আলমগীর হোসেন ও হারুনুর রশীদ আজাদ ভোটগ্রহণ চলাকালেই জালিয়াতির অভিযোগ তুলে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

ছাগলনাইয়ায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোহাম্মদ মোস্তফা। তার ভোট সংখ্যা ১৭ হাজার ৫৭৪ ভোট। অন্যদিকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মোহাম্মদ আলমগীর পেয়েছেন ৭৬৪ ভোট। তিনি ভোট শুরুর দেড় ঘণ্টার মাথায় নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

বিএনপির শক্ত অবস্থান বলে পরিচিত নোয়াখালীর সেনবাগেও মেয়র পদে জয়ী হয়েছেন নৌকার প্রার্থী আবু জাফর টিপু। তবে এখানে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তোলেন আওয়ামী লীগেরই বিদ্রোহী প্রার্থী আবু নাছের দুলাল। এরকম ৯ টি  পৌরসভায়ই একই ফল।

ঢাকাটাইমস
Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now