শীর্ষ শিরোনাম
Home » প্রবাস » মাওলানা মুহিউদ্দীন খান স্মরণে ইউকে জমিয়তের দোয়া মাহফিল

মাওলানা মুহিউদ্দীন খান স্মরণে ইউকে জমিয়তের দোয়া মাহফিল

13501565_1643610055961385_385668742685607770_nসিলেট রিপোর্ট:  বিশ্ববরণ্য আলেম জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সিনিয়র সহসভাপতি ও মাসিক মদীনা সম্পাদক মাওলানা মুহিউদ্দীন খান (রহঃ) স্মরণে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ইউকের উদ্যেগে এক দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। রোববার বিকাল ৭ ঘঠিকায় মারকাজুল উলুম লন্ডনে অনুষ্ঠিত সভায সভাপতিত্ব করেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ইউকের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা শুয়াইব আহমদ।
সাধারন সম্পাদক সৈয়দ তামীম আহমদ এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সহ সভাপতি মাওলানা জুনাইদ আল হাবীব। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাখেন শায়খুল হাদীস মাওলানা আবদুল মুছাব্বীর। অন্যান্যের মধ্যে  বক্তব্য  রাখেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ইউকের উপদেষ্টা আলহাজ্ব শামছুজ্জামান চৌধুরী, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ইউকের সহ সভাপতি মুফতি আব্দুল মুন্তাকিম, মাওলানা আব্দুল মজিদ, আবু তাহের চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা সৈয়দ নাঈম আহমদ, ট্রেজারার হাফিজ হুসাইন আহমদ বিশনাথী, সেচছাসেবক দলের সেক্রেটারি আবুল হোসেন, কেন্দ্রীয় ওলামা দলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা সামিম, মাসিক আল আহরার সম্পাদক মাওলানা সালমান,মাওলানা শেখ রোম্মান আহমদ, ইউকে জমিয়তের মিডিয়া সেক্রেটারি মুফতি সৈয়দ রিয়াজ আহমদ,ওয়েলফেয়ার সেক্রেটারি হাফীজ জিয়াউদ্দীন,অফিস সম্পাদক মাওলানা ফখরুদ্দিন বিশনাথী, মাওলানা জাকারিয়া, জুবায়ের আহমদ চৌধুরী, মাকবুল আহমদ, মাওলানা খালেদ, ফুজেল আহমদ চৌধুরী প্রমুখ ।
দোয়া মাহফিলে বক্তরা মাওলানা মুহিউদ্দীন খান এর বর্ণাঢ্য জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন, তাঁরা বলেন তিনি ছিলেন
বিশ্ববিখ্যাত আলেম, তাওহিদী জনতার অভিভাক ও মুরুব্বী এবং বিশ্ববিখ্যাত মনীষীদের একজন। খাঁটি দেশেপ্রেমিক, অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী, মজলুম ও নির্যাতিত অত্যাচারিতদের পক্ষে জালেমের বিরুদ্ধে আপসহীন। নাস্তিক মুরতাদ এবং ইসলাম ও মুসলিমবিদ্বেষী আগ্রাসী শক্তির বিরুদ্ধে সাহসী সিপাহসালার। তার বলিষ্ট লেখা ও কণ্ঠের সাহসী হুঙ্কারে জনসাধারণের মাঝে দীনি জযবা ও প্রেরণার সৃষ্টি হতো। তিনি মুসলিম উম্মাহ্র যে কোন সংকটকালীন সময়ে কান্ডারীর ভূমিকা পালন করেছেন। বাংলাদেশের মুসলমানদের স্বার্থ রক্ষা ও ভারতের সাম্প্রদায়িক উস্কানির বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন। টিপাই মুখে ভারত কর্তৃক বাঁধ নির্মাণের বিরুদ্ধে লংমার্চে নেতৃত্ব দিয়েছেন।
তিনি সর্বদা ওলামায়ে কেরামের বাস্তবসম্মত ঐক্য স্থাপনের চেষ্টা চালিয়েছেন। তিনি মনে করতেন আলেম সমাজের অনৈক্যই মুসলিম উম্মাহর পতনের প্রধান কারণ। ইসলামপ্রিয় সকল মানুষকে ঐক্যবদ্ধ রাখার ক্ষেত্রে তার ভূমিকা ছিল কালোত্তীর্ণ। জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোতে তার সুদৃঢ় নেতৃত্ব ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।
বক্তরা আরো বলেন, মাওলানা মাসিক মদিনা সম্পাদনার পাশাপাশি অনুবাদ করেছেন মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ শফী রহ. লিখিত পবিত্র কুরআনের বিখ্যাত তাফসির মা’রিফুল কুরআন। তার সম্পাদিত, অনূদিত ও সংকলিত বইয়ের সংখ্যা অগুণিত। তিনি একজন জাতীয় রাজনীতিক এবং আন্তর্জাতিক সংগঠক। তার মৃত্যুতে বিশ্ববাসী হারালো এক অনন্য কলম-যোদ্ধাকে। তিনি হক্কানী ওলামায়ে কেরামের বিপ্লবী কাফেলার একটি উজ্জল নক্ষত্র, তার শূন্যতা পূরণ হবার নয়।
তিনি তাফসিরে মা’আরিফুল কুরআনের অনুবাদ করে মুসলিম জনতার মনের গভীরে স্থান করে নিয়েছেন। ইসলামী আন্দোলন, রাজনীতি ও লেখালেখি সমানভাবে চালিয়ে গেছেন। তিনি একাধারে মাসিক মদীনার সম্পাদক, সীরাতে রাসূল সা এর গবেষক, বহুগ্রন্থ প্রণেতা, বিদগ্ধ সাহিত্যিক, বরেণ্য আলেমেদ্বীন, সত্যিকারের নায়েবে রাসুল।
নেতৃবৃনদ বলেন, উপমহাদেশে আলেমদের মধ্যে কর্মক্ষেত্রে প্রতিভার সাক্ষর রেখে যারা খ্যাতির মালা পরেছেন তাদের মধ্যে মাওলানা মহিউদ্দীন খান একজন। তিনি দেশের বাইরে, আরব জাহানে, ইউরোপে এবং দূরপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশেও পরিচিত ছিলেন। আন্তর্জাতিকভাবে পরিচিত এমন আলেমের সংখ্যা বাংলাদেশে হাতেগোনা। তাদের অন্যতম ছিলেন মাওলানা মুহিউদ্দীন খান।
আমরা মহান আল্লাহর দরবারে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি। ফরিয়াদ করছি আল্লাহ তা’আলা যেন তার বহুমূখী দ্বীনি খেদমাতগুলো কবুল করতঃ তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসের আ’লা মাকাম নসীব করেন।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now