শীর্ষ শিরোনাম
Home » সাহিত্য » ১৯ রমজান : দুই র্শীষ আলেমের চলে যাওয়া..

১৯ রমজান : দুই র্শীষ আলেমের চলে যাওয়া..

2alimবেগম শরীফা আমীন,সিলেট রিপোর্ট: ১৯ রমজান একটি ঐতিহাসিক দিন। শায়খুল হাদীস আল্লামা আজিজুল হক এবং মাওলানা মুহিউদ্দীন খান উভয়ই বিশ্বখ্যাত আলেমে দ্বীন। আমি বাংলার এই দুই কৃতিসন্তানের কথা জানি,তাদের নিযে স্টাডি করেছি। এই দুই মনীষীর মধ্যেঅিনেক জাযগায মিল পেয়েছি।জেীবন সংগ্রামে উনারা একই সাথে কাজ করেছেন। আবার একই দিনে (১৯ রমজান ) চলে গেলেন।
মাসিক মদীনার সম্পাদক মাওলানা মুহিউদ্দিন খান ১৯ রমজান (২০১৬) শনিবার পৃথিবীকে চিরবিদায় জানান। অপর দিকে শায়খুল হাদিস আল্লামা আজিজুল হক(রঃ) ঠিক একই দিনে গত ২০১২ সালে ১৯ রমজান না ফেরার দেশে চলে যান।
পাকিস্তান ও বাংলাদেশ আমলে উনারা একই সাথে আন্দোলন সংগ্রাম করেছেন।স্বোধীনতা পরবর্তী সমযে ও বিভিন্ন সময়ে একসাথে কাজকরেন।
শাযখুল হাদীস আল্রামা আজিজুল হক যখন  জমিয়তে উলামাযে ইসলামের সভাপতি ছিলেন, তখন জমিয়তের সেক্রেটারী ছিলেন মাওলানা মুহিউদ্দীন খান। পরবর্তীতে যখন ইসলামী ঐক্যজোট হলো তখন ও এক সাথে ।  ৪ দলীয় ঐক্যজোট গঠনে উভয়ই ছিলেন একই সাথে। কওমী মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাক প্রতিষ্ঠার ইতিহাস সে এক ভিন্ন বিষয হলেও এই দুই আলেমের ভূমিকা অগ্রগন্য।  মুহিউদ্দিন খান ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে প্রকাশিত মারেফুল কোরআন-এর বাংলা অনুবাদ করেন। আর শাযখুল হাদীস বোখারী শরীফ অনুবাদ করেন ! তিনি মাসিক মদীনা নামে একটি পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথেও জড়িত ছিলেন তিনি।  তিনি রাবেতা আলম আল ইসলামি ও ওয়ার্ল্ড মুসলিম কংগ্রেসসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ইসলামি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।
মাওলানা মুহিউদ্দীন খান আমার পিতৃতুল্য,আমার স্বামীর রুহানী পিতা ছিলেন তিনি।  তার ইন্তেকালের সঙবাদটি শুনে সত্যিই কষ্ট পেযেছি।  সরাসরি আমি তাকে দেখিনি, কিন্তু আমার সেই রুহানী ‘বাবা’কে আমি ঠিকই আবিস্কার করেছি স্বামীর মধ্যে। তিনি আমাদের অভিভাবক ছিলেন। আমার বিয়ের প্রথম শাড়ীটা মাওলানা মুহিউদ্দীন খান প্রদত্ত ……………….(চলমান)

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now