শীর্ষ শিরোনাম
Home » মাওলানা মুহিউদ্দীন খান প্রসঙ্গ » মদীনা প্রেমিক মাওলানা মুহিউদ্দীন খান

মদীনা প্রেমিক মাওলানা মুহিউদ্দীন খান

5_42835তানজিল আমির : যাদের হাত ধরে রচিত হয় ইতিহাস। কর্ম ও সাধনার এক সুন্দর পৃথিবী গড়ে ওঠে তাদের দীর্ঘ প্রচেষ্টায়। মাওলানা মহিউদ্দিন খান বাংলাদেশের আলেম সমাজের এমনই এক উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন। শুধু আলেম সমাজ নয়, বাংলাভাষী মুসলমানদের তিনি ছিলেন এক উজ্জ্বল আলোকবর্তিকা। যে আলোয় তিনি এ দেশের মুসলমানদের পথ দেখিয়েছেন। মাতৃভাষায় প্রভুর কথা ও নবীজীর বাণী প্রচার ও চর্চায় তিনি ছিলেন অন্যতম পথিকৃত। আলোকিত এ মানুষটি ১৯৩৫ সালের ১৯ এপ্রিল কিশোরগঞ্জ জেলার ছয়চির গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পৈতৃক নিবাস ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ের আনসার নগরে।

পাঁচবাগ মাদ্রাসা থেকে ১৯৫১ সালে আলিম ও ১৯৫৩ সালে স্কলারশিপসহ ফাজিল পাস করেন। ১৯৫৩ সালে উচ্চ শিক্ষার্থে ঢাকা সরকারি আলিয়া মাদ্রাসায় ভর্তি হন এবং ১৯৫৫ সালে হাদিস বিষয়ে কামিল ও ১৯৫৬ সালে ফিকাহ বিষয়ে কামিল ডিগ্রি লাভ করেন। সাধারণত নিজ জ্ঞান ও কর্মপ্রতিভায় অনেকেই খ্যাতি লাভ করেন। কিন্তু মাওলানা মহিউদ্দিন খান জ্ঞানের আলোয় শুধু নিজে আলোকিত হননি, আলোকিত করেছেন গোটা জাতিকে। জ্ঞানের প্রদীপ শিখা জ্বালিয়ে গেছেন জীবনজুড়ে। লাখো মানুষকে আলোকিত করেছেন, বাংলা ভাষায় নেতৃত্ব দেয়ার পথ দেখিয়েছেন আলেম সমাজকে। তার গোটা জীবনই কর্মমুখর ও প্রেরণাময়। পাকিস্তান আমলে যখন বাংলাচর্চার পথ মসৃণ ছিল না, তখন তিনি মাসিক মদিনা বের করেন। ১৯৬১ সালে তার প্রতিষ্ঠিত মাসিক মদিনা এ দেশের সবচেয়ে বহুল প্রচারিত জনপ্রিয় পত্রিকা। দেশ-বিদেশে যার পাঠক-পাঠিকার সংখ্যা কয়েক লাখ ছিল। মাসিক মদিনার মাধ্যমে তিনি ইসলামী পত্রিকার এক নতুন ধারার সূচনা করেন। যার অনুকরণে দেশের বিখ্যাত মাদ্রাসা ও বিভিন্ন জায়গা থেকে এখন অনেক মাসিক পত্রিকা বের হচ্ছে। মাসিক মদিনাকে কেন্দ্র করে তিনি এক নীরব বিপ্লব ঘটিয়েছেন। আলেম থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ, এ পত্রিকাটির মাধ্যমে বাংলা ভাষায় ইসলামের মহান আদর্শ ফুটিয়ে তোলার এক অনন্ত প্রেরণা জুগিয়েছেন সবার মাঝে। সেই সময়ে শুধু উম্মাহর চিন্তায় বিভোর হয়ে নিজেকে আত্মনিয়োগ করেছিলেন কণ্টকাকীর্ণ এক মহাসড়কে। কঠোর পরিশ্রম ও কষ্টে তিনি যে পথ গড়ে দিয়েছেন, সে পথে আজ হাজারো পথিক স্বাচ্ছন্দ্যে পৌঁছে যাচ্ছে কাক্সিক্ষত গন্তব্যে। এভাবে কিছু মানুষ নিজের সর্বস্ব বিলিয়ে জাতির অন্ধকার পথকে আলোকিত করেন। আমাদের এ দেশে মহিউদ্দিন খান ছিলেন তেমনই এক মহিরূহ। বাংলা ভাষায় এখন যে তাওহিদের সুবাস, তা মাওলানা মহিউদ্দিন খানের দীর্ঘ এক সংগ্রামের ফসল। একের ভেতর অনেক বলে একটি কথা প্রচলিত রয়েছে। আমাদের মহিউদ্দিন খান অনেকটা এমনই। তিনি একাধারে আলেম, সাহিত্যিক, গবেষক, অনুবাদক, রাজনীতিবিদ, সমাজসেবক, আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব। এমন বহুমুখী কর্মের সমন্বয়ে এক অন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তার প্রতিষ্ঠিত মদিনা পাবলিকেশন্স এ দেশের একটি শীর্ষস্থানীয় প্রকাশনী। এ প্রতিষ্ঠানটির মাধ্যমে তিনি বাঙালি মুসলমানদের পরিচয় করিয়েছেন বিশ্ব সাহিত্যের বিশাল ইসলামী ভাণ্ডারের সঙ্গে। তার প্রতিষ্ঠিত এ প্রকাশনাটি একুশের বইমেলা ছাড়াও কলকাতাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বইমেলাতে অংশগ্রহণ করে থাকে। মদিনা পাবলিকেশন্সের পথ ধরে এখন অনেক প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান হয়েছে। শত শত ইসলামী প্রকাশনা নিয়ে বাংলাবাজারে এখন বুক টান করে দাঁড়িয়ে আছে ইসলামী টাওয়ার। এর পেছনে যে মানুষটি শক্তি ও সাহস নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন, তিনি মাওলানা মহিউদ্দিন খান। বিচিত্র এ প্রতিভাবান মানুষটি ১৯ রমজান সবাইকে কাঁদিয়ে পাড়ি জমিয়েছেন পরপারে। পরদিন বাদ জোহর বাইতুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে তার জানাজায় ঢল নামে হাজারো মানুষের। এ যেন মদিনা প্রেমিকের মদিনাপাণে যাত্রা। tanjil.amir@yahoo.com
যুগান্তর ০১ জুলাই, ২০১৬

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now