শীর্ষ শিরোনাম
Home » মৌলভীবাজার » মৌলভীবাজার জেলায় পর্যটনের জন্য আলাদা মোটেল-রিসোর্ট তৈরী হবে: পর্যটনমন্ত্রী

মৌলভীবাজার জেলায় পর্যটনের জন্য আলাদা মোটেল-রিসোর্ট তৈরী হবে: পর্যটনমন্ত্রী

index
সিলেট রিপোর্ট:
বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন,  পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তুলতে এবং পর্যটনের প্রসার ঘটাতে হলে জেলায় জেলায় পর্যটন অফিস স্থাপনের  পরিকল্পনা রয়েছে। বর্তমানে বাজেটের অভাবে জেলায় জেলায় পর্যটন অফিস স্থাপন করা সম্ভব হচ্ছে না। কানেক্টিভিটি ভালো করতে হবে। এখন যদি বিছানাকান্দি যেতে দীর্ঘ সময় লাগে তাহলে হবে না। সিলেটের ট্যুরিস্ট প্রোডাক্ট আছে কিন্তু কানেক্টিভিটি ভালো হওয়া দরকার। আগামী এক বছরের মধ্যে শমসেরনগর বিমানবন্দর থেকে এয়ারবাস চালু হবে বলে জানিয়েছেন রাশেদ খান মেনন। যে এলাকায় ট্যুরিস্ট স্পট আছে সে এলাকার মানুষদের পর্যটন মনস্ক হতে হবে। একজন ট্যুরিস্ট ১১টা কর্মসংস্থান তৈরি করে। তাহলে এক ট্যুরিজম দিয়ে আমরা অনেক কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র তৈরি করতে পারি। শ্রীমঙ্গলে পর্যটনের জন্য আলাদা মোটেল-রিসোর্ট তৈরী হবে।

রোববার শ্রীমঙ্গলের টি হ্যাভেন রিসোর্টে পর্যটনের অপার সম্ভাবনা ও সমস্যার নানা দিক নিয়ে আয়োজিত বিশেষ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

রোববার ২৪ জুলাই সকালে চায়ের রাজধানী খ্যাত শ্রীমঙ্গলের টি হ্যাভেন রিসোর্টে আয়োজিত এ বিশেষ আলোচনায় সভাপতির বক্তব্য রাখছিলেন তিনি। বক্তৃতায় সিলেটসহ দেশের পর্যটনের অপার সম্ভাবনা ও এর সমস্যাগুলোর নানা দিক নিয়ে কথা বলেন আলমগীর হোসেন। এজন্য জেলা প্রশাসনকে জায়গা দিতে হবে বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী। তিনি  বিভিন্ন হোটেল-মোটেলে মালিকদের  প্রতি শ্রীমঙ্গলের জন্য প্যাকেজ ট্যুর চালু আহ্বান জানান। তিনি বলেন, শুধু শ্রীমঙ্গলের জন্য হোটেল-মোটেল মালিকরা প্যাকেজ ট্যুর চালু করতে পারেন। যেমন- শ্রীমঙ্গলে দুই দিন-তিন রাত ভ্রমণ করলে আবাসন ব্যবস্থার সঙ্গে যাওয়া-আসা টিকেট ও খাওয়া ফ্রি। এরকম বিভিন্ন আকর্ষণীয় প্যাকেজ চালু করা যেতে পারে।  তিনি বলেন, বেশি লাভ করতে আমরা বনায়ন ধ্বংস করে ফেলছি, জীববৈচিত্র্য ধ্বংস করে ফেলছি। আজ জাফলাং, লালাখাল ধ্বংসের দিকে। আমরাই এগুলোকে ধ্বংস করে ফেলছি। আমরা আরো সচেতন হতে হবে।অনুষ্ঠানে উপস্থিত রয়েছেন মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মাসুকুর রহমান সিকদার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খায়রুল ইসলাম, শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) বিশ্বজিৎ কুমার পাল, টি হ্যাভেন রিসোর্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুলতান মো ইদ্রিস লেদু ও পরিচালক আবু সিদ্দিক মো. মুসা, শ্রীমঙ্গল ইন’র চেয়ারম্যান মো ছায়েদ আলী, মৌলভীবাজর ট্যুরিস্ট পুলিশের সিনিয়র এএসপি একেএম মোশাররফ হোসেন, শ্রীমঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ভানুলাল রায়, মৌলভীবাজার জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সিকান্দর আলী, ইউএসএইড-এর ক্লাইমেট রেজিলিয়েন্ট ইকোসিস্টেমস অ্যান্ড লাইভলিহুডস (ক্রেল) প্রকল্পের  কমিউনিকেশনস ম্যানেজার ওবায়দুল ফাতাহ তানভীর প্রমুখ।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now