শীর্ষ শিরোনাম
Home » রাজনীতি » চাপের মুখে সংসদে ক্ষমা চাইলেন ইনু

চাপের মুখে সংসদে ক্ষমা চাইলেন ইনু

Enu20160725205754
ডেস্ক রিপোর্ট:
টেস্ট রিলিফ (টিআর) এবং কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচি (কাবিখা) নিয়ে দেওয়া বক্তব্যে সংসদ সদস্যদের সমালোচনার মুখে ক্ষমা চেয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, গণমাধ্যমে আমার বরাত দিয়ে যে বক্তব্য এসেছে তা ছিলো অনভিপ্রেত। এজন্য আমি ক্ষমা চাচ্ছি ও দুঃখ প্রকাশ করছি।

 

সোমবার (২৫ জুলাই) সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে সংসদ সদস্যরা তাকে ক্ষমা চাইতে বলেন।

এমপিদের দাবির প্রেক্ষিতে মন্ত্রী তার বক্তব্যের ব্যাখ্যা দেন ও দুঃখ প্রকাশ করেন। তবে ক্ষমা না চাওয়ায় এমপিরা হৈ চৈ শুরু করেন। বিশেষ করে জাতীয় পার্টির আবু হোসেন বাবলা স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, দুঃখ প্রকাশ করলে হবে না, তথ্যমন্ত্রীকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে, নইলে আমরা শান্ত হব না।

এরপর স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপিদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে কথা বলেছেন, মন্ত্রী তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন। এরপর আপনারা আর কী ব্যাখা দাবি করেন?

তখন একটু নিচু স্বরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সংসদ সদস্যরা যে বক্তব্য উত্থাপন করেছেন তার প্রেক্ষিতে কয়েকটা বক্তব্য জানাতে চাচ্ছি। গতকাল রোববার (২৪ জুলাই) দুপুরে ঢাকার পল্লী সহায়তা ফাউন্ডেশনের টেকসই উন্নয়ন নিয়ে একটা আলোচনা সভায় আমি ছিলাম। সেই আলোচনা সভায় টিআর-কাবিখা নিয়ে সংসদ সদস্য ও জনপ্রতিনিধিদের সম্পর্কে আমার যে বক্তব্য প্রকাশিত হয়েছে। সেই বিষয়ে যে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছে, সদস্যরা কষ্ট পেয়েছেন, এ জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি।

তিনি বলেন, গণমাধ্যমে প্রকাশিত আমার বক্তব্য প্রসঙ্গে গতকাল রাতেই একটি বিবৃতি গণমাধ্যমে দিয়েছি, কিছু কিছু গণমাধ্যম তা প্রকাশও করেছে। তারই একটি কপি এখানে দিয়েছিলাম, অন্যকোনো উদ্দেশ্যে নয়।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, কাজের বিনিময় খাদ্য কর্মসূচিতে অতীতের সরকারের অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতি অবসানে প্রধানমন্ত্রী আন্তরিক প্রচেষ্টার বিষয়টি তুলে ধরতে গিয়ে আমি ক্ষেত্র বিশেষে উদাহরণ হিসেবে দুর্নীতির কথা উল্লেখ করেছি। আমি ঢালাওভাবে বলিনি।

এ কথার পর সংসদ সদস্যরা হৈ চৈ করে ক্ষমা চাইতে বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমি নিজে একজন সংসদ সদস্য হিসেবে সংসদ সদস্য ও জনপ্রতিনিধিদের আন্তরিকভাবে সম্মান করি এবং আমার সেই সম্মান অক্ষুন্ন আছে। এমপিদের কাছে এবং জনপ্রতিনিধিদের কাছে আন্তরিকভাবে দু:খ প্রকাশ করছি। একই সঙ্গে এমপিদের সম্পর্কে যে বক্তব্য গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে তা প্রত্যাহার করে নিচ্ছি। একজন জঙ্গি দমনের যোদ্ধা হিসেবে আমার এই আন্তরিক দুঃখ প্রকাশ গ্রহণ করবেন এবং বাধিত করবেন।

এ সময় সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সংসদে উপস্থিত ছিলেন।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now