শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » উচ্ছেদ আতঙ্কে তারাপুরের দেড় সহস্রাধিক পরিবার

উচ্ছেদ আতঙ্কে তারাপুরের দেড় সহস্রাধিক পরিবার

67768সিলেট রিপোর্ট:  সিলেটের তারাপুর চা বাগান আদালতের নির্দেশে হাতছাড়া হয়েছে দানবীর ও শিল্পপতি রাগীব আলীর। দেবোত্তর সম্পত্তি তারাপুর চা বাগান থেকে সকল স্থাপনা সরিয়ে নিতেও নির্দেশ দেন সর্বোচ্চ আদালত। এরই প্রেক্ষিতে তারাপুরের বাসা-বাড়ি ছাড়তে উচ্ছেদ নোটিশ দিয়েছে সিলেট জেলা প্রশাসন। আগামী ১৩ আগস্টের মধ্যে তারাপুর না ছাড়লে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেয়া হবে বলেও জানিয়ে দিয়েছে প্রশাসন। এই উচ্ছেদ নোটিশে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তারাপুরে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করা দেড় সহস্রাধিক পরিবার। আদালতের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল এসব পরিবার জালিয়াতির দায়ভার নিতে নারাজ। দীর্ঘমেয়াদে তাদের বসতভিটার জায়গাটুকু বন্দোবস্ত দিতে সরকারের প্রতি দাবি জানিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছেন তারা।
জানাগেছে,
আশির দশকে তারাপুর চা বাগান এর মালিক হন রাগীব আলী ও তার ছেলে আবদুল হাই। এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চলা মামলার প্রেক্ষিতে একটি রিট আবেদনের শুনানি শেষে গত ১৯ জানুয়ারি সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ রায় প্রদান করেন। রায়ে তারাপুর চা বাগানে রাগীব আলীর দখলদারিত্ব অবৈধ ঘোষণা করে ছয় মাসের মধ্যে সকল স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়।চা বাগানের জায়গায় রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। এছাড়াও নির্মাণ করা হয় বিভিন্ন শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান।
বৃহত্তর তারাপুর পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি আবদুর রাজ্জাক খান রাজা জানান- তারাপুর চা বাগানের ৪২২ একর জমির মধ্যে আবাসন খাতে ব্যবহার হচ্ছে প্রায় ৭০ একর জায়গা। দুই যুগের বেশি সময় ধরে বিভিন্ন ব্যক্তি ওই জায়গার উপর বাসা-বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করছেন। তবে বিষয়টিকে মানবিক দৃষ্টিতে দেখার জন্য সম্প্রতি অর্থমন্ত্রীকে অনুরোধ জানিয়েছেন স্থানয়ি আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now