শীর্ষ শিরোনাম
Home » নারী ও শিশু » যিনা করতে গিয়ে ধরা খেলেন ট্রাফিক সার্জেন্ট, অতপর বিয়েতে রফা

যিনা করতে গিয়ে ধরা খেলেন ট্রাফিক সার্জেন্ট, অতপর বিয়েতে রফা

indexডেস্ক রিপোর্ট: সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার নিমগাছি বাজার এলাকায় এক নারীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে ধরা খেয়েছেন আতিকুর রহমান (২৫) নামের এক ট্রাফিক সার্জেন্ট। পরে শুক্রবার রাতে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের মধ্যস্থতায় তাকে ওই নারীর সঙ্গে বিয়ে দিয়ে বিষয়টির রফা হয়।

অভিযুক্ত আতিকুর রহমান বগুড়ার শেরপুর উপজেলার মির্জাপুরের বাসিন্দা এবং নাটোর জেলার উপর বাজার পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত। আর রানী খাতুন (২০) নামের ওই নারী রায়গঞ্জ উপজেলার নিমগাছি বাজার এলাকার সানোয়ার হোসেনের মেয়ে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, এক বছর আগে ঘটকের মাধ্যমে তাদের মধ্যে বিয়ের কথাবার্তা হয়। এ সময়ই আতিকুর ঘটকের মাধ্যমে রানীর মোবাইল নম্বর নেন। তবে, তাদের মধ্যে বিয়ে না হলেও দু’জন কথাবার্তা চালিয়ে যেতে থাকেন। এরই জের ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে, তা পরবর্তীতে শারীরিক সম্পর্ক পর্যন্ত গড়ায়। এরপর সার্জেন্ট আতিকুর মাঝে মধ্যেই রানীর বাড়িতে আসা-যাওয়া করতেন।

এক পর্যায়ে রানী ও তার মা বুঝতে পারেন ওই সার্জেন্ট শুধু অনৈতিক সম্পর্কই রাখতে চান, বিয়ে করতে চান না। এমতাবস্থায় শুক্রবার সকালে সার্জেন্ট আতিকুর দেখা করতে আসলে তাকে আটকে রাখে রানীর পরিবারের সদস্যরা। বিকালে বিষয়টি জানাজানি হলে তারা আতিকুরকে পরিবারের লোকজনকে খবর দিতে বলেন। খবর পেয়ে তারা এলে সোনাখাড়া ইউনিয়ন পষিদের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল রিপনসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের মধ্যস্থতায় গভীর রাত পর্যন্ত দেনদরবার চলে। পরে রাতেই ৮ লাখ টাকা কাবিননামা করে আতিক ও রানীর বিয়ে দেয়া হয়।
সিলেট রিপোর্ট:/সু-টাইম-টি ২৮-৮-২০১৬

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now