শীর্ষ শিরোনাম
Home » জাতীয় » মিরপুরে ‘জঙ্গি আস্তানা’র খোঁজ , অভিযানে নিহত ১

মিরপুরে ‘জঙ্গি আস্তানা’র খোঁজ , অভিযানে নিহত ১

capture_126520অলিদ তালুকদার,ঢাকা থেকে: রাজধানীর মিরপুরের রূপনগর হাউজিংয়ের ৩৩ নম্বর সড়কের ৩৪ নম্বর বাড়ির ছয়তলা ভবনের নিচ তলায় বাসায় ‘জঙ্গি আস্তানা’র খোঁজ পেয়েছিল পুলিশ আগেই। এই আস্তানায়ই আজ (শুক্রবার) রাতের অভিযানের গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁর হোতা তামিম চৌধুরীর ডান হাত হিসাবে পরিচিত ‘জঙ্গি’ ‘মেজর’ মুরাদ ওরফে জাহাঙ্গীর নিহত হন।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের পরই পুলিশ ‘মেজর’ মুরাদের খোঁজ পায়। এই মুরাদই নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ার বাড়িটি ভাড়া নিয়েছিল এবং সেই বাড়িতে অভিযানের সময় তামিম চৌধুরী তার তিন সহযোগীসহ নিহত হন। নারায়ণগঞ্জের ঐ আস্তানায় ‘জঙ্গি’ মুরাদের নিয়মিত যাতায়াত ছিল। অভিযানের আগের দিনও মুরাদ ঐ বাড়িতে গিয়েছিল।

পরে গত ২৭ আগস্ট নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের পর পুলিশ মিরপুরের রূপনগরের এই জঙ্গি আস্তানার খোঁজ পায়। তার পরদিন ২৮ আগস্ট পুলিশ বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে রুপনগরের ৩৩ নম্বর সড়কের ৩৪ নম্বর বাসায় জাহাঙ্গীর ওরফে ‘মেজর’ মুরাদের বাসায় অভিযান চালায়। কিন্তু মুরাদ সেখানে না থাকায় তাকে ধরতে পারেনি পুলিশ। নারায়ণগঞ্জে অভিযানের পর পরই আতঙ্গে বিছানাপত্র ফেলেই মিরপুরের রূপনগরের বাসা থেকে সটকে পড়ে মুরাদ। পরে পুলিশ তার বাড়িওয়ালাকে বসে আসে ‘জঙ্গি’ মুরাদ তার বিছানাপত্র নিতে আসলে যেন পুলিশকে খবর দেয়া হয়। সেই অনুযায়ী বাড়িওয়ালা পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়েই আজ শুক্রবার সন্ধ্যার পর রূপনগর পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। দরজা দিয়ে তিন জন পুলিশ আস্তানার ভেতরে ঢোকার পরই ‘মেজর’ মুরাদ একাই তাদের ওপর ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।সঙ্গে গুলিও চালায়।পুলিশও এসময় পাল্টা গুলি চালায়।এতে জঙ্গি মুরাদ ঘটনাস্থলেই নিহত হয় এবং তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়।এদের মধ্যে দুই জন ওসি এবং একজন এসআই।

পুলিশ জানায়, মুরাদ বেশ অনেকদিন ধরেই রুপনগরের এই বাসায় স্ত্রী সন্তানসহ বসবাস করে আসছিলেন। এখান থেকে প্রায় সময়ই নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় যেতেন। আবার সন্ধ্যার মধ্যেই রুপনগর চলে আসতেন।

পাইকপাড়ায় অভিযানের দিন কোনো কারণে আগেই রুপনগর বাসায় চলে আসেন মুরাদ। ফলে সেদিন তিনি প্রাণে বেঁচে যান। ২৮ আগস্ট মুরাদের ৩৪ নম্বর বাসায় অভিযান চালায় পুলিশ। দেখা যায় বাসা তালা দিয়ে চলে গেছেন মুরাদ।

পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের উপ-কমিশনার মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন জানান, নিহত মুরাদ ছিলেন গুলশান হামলার মাস্টারমাইন্ড জঙ্গি নিহত তামিম চৌধুরীর সেকেন্ড ইন কমান্ড। নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় যেদিন হামলা হয়েছিলো তার পরদিন মিরপুরের রূপনগরে মেজর মুরাদকে ধরতে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস্যরা অভিযান চালিয়েছিলো। কিন্তু নারায়নগঞ্জে অভিযানের খবর পেয়েই মুরাদ তার রূপনগরের ঘরে তালা দিয়ে পালিয়ে যায়। একারণে তাকে আর সেদিন ওই বাড়িতে পাওয়া যায়নি।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় নিউ জেএমবির সামরিক প্রশিক্ষক ‘মেজর’ মুরাদ ওরফে জাহাঙ্গির বাসায় আসলে পুলিশে খবর দেয়া হয়। পরে অভিযানে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। অভিযানে মেজর মুরাদ নিহত হন।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now