শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » মাদানী (র) সিলেটকে মহব্বত করতেন, সেই ঠানেই আমি আপনাদের নিকট চলে এসেছি ——আল্লামা শাহ আহমাদ শফী

মাদানী (র) সিলেটকে মহব্বত করতেন, সেই ঠানেই আমি আপনাদের নিকট চলে এসেছি ——আল্লামা শাহ আহমাদ শফী

আলিয়া মাঠ থেকে-শাহিদ হাতিমী, সিলেট রিপোর্ট: দেশের সর্বাদিক আলোচিত ও প্রভাবশালী আলেম হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক এবং হেফাজতে ইসলামের আমির , খলিফায়ে মাদানী আল্লামা শাহ আহমাদ শফী বলেছেন, প্রতিটি মুসলমানকে হালাল-হারাম বেচে চলতে হবে। ইসলামী শরীয়তে যে সব বিষয় হারাম করাহয়েছে এসব থেকে নিজেকে মুক্ত রাখতে হবে। তিনি বলেন, ছবি উঠানো ইসলামে হারাম । কোন প্রাণীর ছবি আকা-ঝুলিয়ে রাখা  এসব হারাম। যারা ছবি তুলবে হাশরের দিন আল্লাহ পাক এর মধ্যে প্রাণ দেওয়ার জন্য বলবেন। সে ব্যাক্তি যখন প্রাণ দিতে পারবেনা, তখন তাকে জান্নামে নিক্ষেপ করা হবে।
উপস্থিত হাজার হাজার জনতাকে লক্ষকরে আল্লামা শফী বলেন, আপনারা ওয়াদা করেন , যে প্রত্যেকের অন্তত একটি ছেলেকে হাফেজ,আলেম, মুহাদ্দিস বানাবেন।  কওমী মাদ্রাসায় লেখা পড়াকরে কেউ বেকারথোকেনা, কেউ উপবাস থাকেনা। রিজিকের মালিক আল্লাহপাক । তিনি কাউকে উপবাস রাখেননা। নিজেকে একটি কওমী মাদ্রাসার পরিচালক উল্লেখ করে আল্লামা শফী আরো বলেন, আমি আপনাদের নিকট ভিক্ষা চাইতেছি , অন্তত একটি ছেলেকে মাদ্রাসায় দিন! বর্তমানে ৯০ বছর বয়সে উপনিত হয়েছি কোন দিন কাপড় ক্রয়করিনি। উপবাস থাকিনী। ফারিগীন আলেম উলামাদের উদ্দেশ্যে হাজার হাজার আলেমের উস্তাদ বয়োবৃদ্ধ এই আলেমে দ্বীন স্বীয় মুর্শিদসায়্যিদ হোসাইন আহমদ মাদানীর স্মৃতিচারণ করে বলেন, আমি অসুস্থ শরীর নিয়ে আপনাদের সিলেটে এসেছি শুধূ আমার উস্তাদের ভালবাসার কারনে।

আমার উস্তাদ শায়খুল ইসলাম মাদানী (র) এই সিলেটকে অত্যন্ত মহব্বত করতেন। সেই মহব্বতের ঠানেই আমি আপনাদের নিকট চলে এসেছি।
প্রত্যেক এলাকায় মক্তব-মাদ্রাসা  প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে ইসলামের সুমহান বার্তাপৌছে দিতে তিনি আহবান জানান।

তিনি শুক্রবার রাতে জামেয়া কাসিমুল উলুম দরগাহে হযরত শাহজালাল (র)এর ৩ দিন ব্যাপী ৪০ সালা দস্তারবন্দীর ২য় দিনে উপরোক্ত কথা গুলো বলেন।

রাত সোয়া  ৯ টায় বয়ান শুরুকরেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী। এসময় সভাপতিত্ব করেন জামেয়া মাদানীয়া আঙ্গুরা মোহাম্মদপুরের মুহতামিম  মাওলানা শায়খ জিয়া উদ্দীন।
অধিবেশন পরিচালনা করেন জামেয়া দারুল কোরআন সিলেটের প্রতিষ্টাতা পরিচালক, সাবেক এম পি, এডভোকেট শাহীনুর পাশা চৌধুরী।
অন্যন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, পাকিস্তানের আল্লামা শাহ রফি উসমানী, মাওলানা শায়খ আব্দুস শহীদ,গলমুকাপনী , মুফতি আব্দুল মুন্তাকিম ,মুফতি আবুল কালাম যাকারিয়া গুরুত্বপুর্ন বয়ান পেশ করেন।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now