শীর্ষ শিরোনাম
Home » রাজনীতি » মধ্যবর্তী নির্বাচনের কোনো সম্ভাবনা নেই : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

মধ্যবর্তী নির্বাচনের কোনো সম্ভাবনা নেই : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ana-pic_128947
ডেস্ক রিপোর্ট: দেশে মধ্যবর্তী নির্বাচনের সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসী এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাংলাদেশে এমন কোনো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি যে মধ্যবর্তী নির্বাচন দিতে হবে। দেশে মধ্যবর্তী নির্বাচনের কোনো সম্ভাবনা নেই। সরকারের মেয়াদ শেষে যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দেশ এখন উন্নতির দিকে এগিয়ে চলেছে।

গত ১৯ থেকে ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জাতিসংঘ সদর দপ্তরে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনের বিভিন্ন বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী। স্থানীয় সময় ২১ সেপ্টেম্বর সাধারণ পরিষদের ভাষণ দেন তিনি। এরপর সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি বিএনপি-জামায়াত জোটের বর্জনের মুখে জাতীয় সংসদ নির্বাচন করে পর পর দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। এরপর থেকে নতুন নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে বিএনপি-জামায়াত জোট। তবে সরকার সেই দাবি অগ্রাহ্য করে ২০১৯ সালে নির্বাচনের কথা বলে আসছে। জাতিসংঘ সম্মেলন শেষে সংবাদ সম্মেলনেও আবারও সেই কথা তুলে ধরলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের এবারের অধিবেশনে উল্লেখযোগ্য এই উদ্যোগসমূহের বাস্তবায়ন পরিস্থিতি ও প্রারম্ভিক অগ্রগতি বিষয়ে আলোচনা হয়। ১৯ সেপ্টেম্বর আমি জাতিসংঘের মাইগ্রেশন এবং রিফিউজি প্লেনারি সেশনে বক্তব্য রাখি। অভিবাসী ও শরণার্থী ইস্যুতে বাংলাদেশের অগ্রাধিকারগুলো আমি তুলে ধরি। অভিবাসনবিষয়ক গ্লোবাল কমপেক্ট-এ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাগুলোর যথাযথ প্রতিফলন নিশ্চিত করার পাশাপাশি শরণার্থী, জলবায়ু উদ্বাস্তু ও অভিবাসীদের অধিকার সুরক্ষার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনায় নেয়ার আহ্বান জানাই।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমার ছেলে সজীব আহমেদ ওয়াজেদ জয় আমার তথ্য-প্রযুক্তি উপদেষ্টা হিসেবে বাংলাদেশে তথ্য-প্রযুক্তির উন্নয়ন এবং বিকাশে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছে। তার সহযোগিতা এবং উদ্ভাবনমূলক চিন্তা-ভাবনার ফলেই বাংলাদেশ এত দ্রুত তথ্য-প্রযুক্তি খাতে সাফল্য অর্জন করতে পেরেছে। আমাদের ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের কাজ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে।‘
জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দেয়ার আগে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর আমন্ত্রণে দেশটিতে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে গিয়ে তিনি ফিফথ রেপ্লেনিশমেন্ট কনফারেন্স অব গ্লোবাল ফান্ডে (জিএফ) অংশ নেন। চার দিনের সফর শেষে ১৯ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী।

ওইদিনই জাতিসংঘ সদরদপ্তরে জাতিসংঘ সম্মেলনের একটি উচ্চ-পর্যায়ের বৈঠকে শরণার্থী ও অভিবাসীদের বিষয়ে বক্তব্য দেন। পরদিন জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনের সাধারণ বিতর্কের উদ্বোধনী সেশনে অংশ নেয়ার পর হোটেল মারিওট ইস্টসাইডে সন্ত্রাসবাদ বিষয়ক আসিয়ান লিডারদের এক সম্মেলনে যোগ দেন।

আজ বৃহস্পতিবার ভোরে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী ভাষণে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদকে বর্তমান সময়ের চ্যালেঞ্জ হিসেবে আখ্যায়িত করে এর বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যেতে বিশ্বনেতাদের সমর্থন চান। এছাড়া বাংলাদেশের মাটি থেকে সন্ত্রাসবাদ সমূলে উৎখাতের দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।

আজই সড়ক পথে ভার্জিনিয়ার উদ্দেশে নিউইয়র্ক ত্যাগ করবেন তিনি। এবং ২৫ সেপ্টেম্বর আমিরেটস এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে দেশের উদ্দেশে ওয়াশিংটন ডিসি’র ডুলেস ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট ত্যাগ করবেন।

শেখ হাসিনাকে বহনকারি ফ্লাইটটি দুবাই হয়ে ২৬ সেপ্টেম্বর বিকাল ৫টা ২০ মিনিটে (বাংলাদেশ সময়) ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now