শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » ‘ক্ষমা করে দাও হে নদী, আজ নাও আমাদের পুষ্প সম্মান…’

‘ক্ষমা করে দাও হে নদী, আজ নাও আমাদের পুষ্প সম্মান…’

SONY DSC

SONY DSC

সিলেট রিপোর্ট:
‘করেছি অনেক অবিচার, অনেক অপমান / ক্ষমা করে দাও হে নদী / আজ নাও আমাদের পুস্প সম্মান…।’  দখল-দুষণে মরতে বসেছে নদী। হারাচ্ছে তার গতিপথ। বাধ তৈরির মাধ্যমে কৃত্রিম অবরোধ সৃষ্টি করে চলছে নদী হত্যার আয়োজনও।

অথচ এই নদীই কিনা মানবসভ্যতা গড়ে তুলার পেছনে হাজার বছর ধরে তার অবদান রেখে আসছে।

আন্তর্জাতিক নদী দিবসকে সামনে রেখে সিলেটে ‘নদীর কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা’ নামে ব্যাতিক্রম কর্মসূচী পালন করেছে আন্তর্জাতিক পরিবেশবাদী সংগঠন অঙ্গীকার বাংলাদেশ।

শুক্রবার নগরীর সুরমা নদীর ক্বিন ব্রীজের নীচে নদীতে পুষ্প নিবেদন করে  নদীর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা কর্মসূচী পালন করেন তারা। পরিবেশ ও প্রকৃতি সংরক্ষণ মনোভাবাপন্ন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষজন এতে অংশ নেন।

কর্মসূচির সমন্বয়কারী অঙ্গীকার বাংলাদেশের সমন্বয়ক মইনুদ্দিন আহমদ জালাল সুরমা নদীতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে নদীর কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন। এ সময় বিশেষ প্রচারপত্র পাঠ করা হয়।

প্রচারপত্রে বলা হয়, ‘পৃথিবীজুড়ে যে নদী হাজার হাজার বছর ধরে মানব সভ্যতা গড়ে তোলার জন্য অবিরত অবদান রেখে চলেছে, সেই নদীর উপর আমরা মানবজাতি অবিবেচক, অকৃতজ্ঞ ও নিষ্ঠুরের মতো বর্বর আচরণ করে চলেছি। লোভী মানুষের দখল, অপরিকল্পিত শিল্পায়ন ও কৃষিক্ষেত্রের কীটনাশকের ভয়ংকর দূষণ এবং নদীর প্রবাহে নানা কৃত্রিম অবরোধ সৃষ্টি করে আমরা নদ-নদীসমূহকে হত্যার আয়োজনে নির্বিচারভাবে মত্ত। নদীর কাছে তাই এই ক্ষমাপ্রার্থনা ও পুষ্পাঞ্জলি নিবেদন।’

সুরমা নদীতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে ক্ষমাপ্রার্থনার অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেটের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম, শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক নাজিয়া চৌধুরী, সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের সহযোগী অধ্যাপক আঞ্জুমান আরা বেগম, শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কাউন্সিলিং সাইক্লোজিস্ট ফজিলাতুন নেসা, নাগরিক মৈত্রীর আহবায়ক সমর বিজয় সী শেখর, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন সুমন, সুরমা রিভার কিপার আবদুল করিম কিম, অ্যাডভোকেট গোলাম রাজ্জাক চোধুরী, অ্যাডভোকেট মোঃ আজিজুর রহমান, এডভোকেট ফজলুর রহমান শিপু, অ্যাডভোকেট সৈয়দ কাওসার আহমদ, সরকারি মহিলা কলেজের সাবেক ভিপি রেহানা পারভিন রেনু, যুব ইউনিয়ন সিলেটের সভাপতি খায়রুল হাসান, খেলাঘর আসর সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক তপন চৌধুরী টুটুল, নগরনাটের সভাপতি অরূপ বাউল, যুব ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক বজলুল হালিম বিদ্রোহী আবির, মুক্তমন খেলাঘর আসরের সভাপতি বিধান দেব চয়ন,  ছাতক ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক মুজিবুর রহমান, নগর নাট এর উজ্জল চক্রবর্তী ও অঙ্গীকার বাংলাদেশ সিলেটের সদস্য জামিল আহমদ একাত্ম হন।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now