শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » পরকালের শান্তির জন্য দুনিয়াতে নেক আমল করতে হবে—-আরশাদ মাদানী ##হেফাজতের আন্দোলন নাস্তিকদের কবর রচনার জন্য—-বাবুনগরী

পরকালের শান্তির জন্য দুনিয়াতে নেক আমল করতে হবে—-আরশাদ মাদানী ##হেফাজতের আন্দোলন নাস্তিকদের কবর রচনার জন্য—-বাবুনগরী

৪০ সালা দস্তারবন্দী সম্পন্ন:
রুহুল আমীন নগরী/শাহিদ হাতিমী সম্মেলন থেকে:
বিশ্ববিখ্যাত ইসলামী বিদ্যাপীঠ দারুল উলুম দেওবন্দের সিনিয়র মুহাদ্দিস  ও জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের  সভাপতি আল্লামা সায়্যিদ আরশাদ মাদানী  বলেছেন, মানুষ হলো আল্লাহর সৃষ্টির মধ্যে শ্রেষ্ট। মানুষের সৃষ্টিই হয়েছে  একমাত্র মহান আল্লাহর ইবাদাতের জন্য । যারা ইবাদাতের মাধ্যমে প্রতিপালকের নৈকট্য লাভ করবেন তারাই কল্যান কামী।  তিনি বলেন, দুনিয়া ও আখেরাতের  কল্যান পেতে হলে শিক্ষার অর্জণ করতে হবে।  কওমী মাদ্রাসা গুলোতে যে শিক্ষা দেওয়া হয় , সে শিক্ষাই প্রকুত পক্ষে  সৃষ্টি কর্তাও পরিচয় পাওয়া যায়।
 শনিবার বিকেলে  সিলেট সরকারী আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে জামেয়া ক্বাসিমুল উলুম দরগাহ মাদ্রাসার উদ্যোগে আয়েজিত ৩ দিন ব্যাপী দস্তারবন্দী মহা সম্মেলনের  সমাপনী দিবসে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন।
বিশেষ  অতিথির বক্তব্যে হেফাজতে ইসলামের  মহাসচিব  আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, আমরা কাউকে ক্ষমতা থেকে নামানো অথবা কাউকে ক্ষমতায় বসানোর জন্য আন্দোলন করিনা। উলামায়ে কেরামের আন্দোলন হলো ইসলাম বিদ্বেষী নাস্তিক-মুরতাদদের বিরোদ্ধে ।  এদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে  হক্বানী উলামায়ে কেরামে অবদান ছিলো। আমরা এদেশে উড়ে আসিনি। আল্লাহ –রাসুলের বিরুদ্ধে কেউ কটুক্তিকরলে আমরা ঘরে বসে থাকতে পারিনা। তিনি  হেফাজতে ইসলামের আন্দোলনের প্রতি ইঙ্গিত দিয়ে বলেন, নাস্তিক মুরতাদদের বিরুদ্ধে আমাদেও আন্দোলন চলবেই। হেফাজতের আন্দোলন নাস্তিকদের  কবর রচনার জন্য। নাস্তিকদের গবেষণাকে কুকুরের গবেষণা উল্লেখকরে তিনি আরো বলেন, কওমী  মাদ্রাসার বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। এসব মাদ্রাসাকে যারা উৎখাত করতে চাইবে তারাই উৎখাত হয়ে যাবে।

প্রখ্যাত বুযুর্গ খলিফায়ে মাদানী শায়খুল হাদীস আল্লামা আব্দুল মোমিন শায়খে ইমামবাড়ীর সভাপতিতে ¡ অনুষ্ঠিত বিশাল সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, হাটহাজারী মাদ্রাসার মুহাদ্দিস ও হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী, শায়খুল হাদীস মাওলানা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী, মুফতি আব্দুস সালাম করাচি, মাওলানা নুরুল ইসলাম ওলিপুরী, মাওলানা সাজিদুর রহমান, প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবিবুর রহমান, বিভিন্ন অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সভাপতি আল্লামা  আবব্দুল মোমিন, খলিফায়ে মাদানী  মাওলানা নোমান, চট্রগ্রাম,  মাওলানা হোসাইন আহমদ বারকুটি, মাওলানা মুহিব্বুর রহমান গাছবাড়ী, মাওলানা জিয়াউদ্দীন।
প্রবাসী উলামায়ে কেরামের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, অধ্যাপক মাওলানা মুহিব্বুর রহমান -নিউইয়র্ক, মুফতি আব্দুল মুন্তাকিম, মাওলানা হাফিজ নজির উদ্দীন, মাওলানা শাহ আহমাদ মাদানী, মাওলানা ফয়জুল হক আব্দুল আজিজ, মাওলানা ক্বারী আব্দুল হাফিজ, মাওলানা আব্দুর রব ।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,  সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী, মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা মাওলানা শাহ নজরুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুর রহিম ইসলামা বাদী, মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়া প্রমুখ। সম্মেলনে  জামেয়া সাবেক ছাত্রদের মধ্যে অনুভুতি পেশ করেন, সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা  তৈয়্যিবুর রহমান চৌধুরী, মাওলানা রশীদ আহমদ, মুফতি হারুনুর রশীদ, মাওলানা সৈয়দ রেজওয়ান আহমদ, মাওলানা মোস্তফা কামাল প্রমুখ। উপস্থাপনায় ছিলেন, মুফতি আবুল কালাম যাকারিয়া, মাওলানা  আতাউল হক, মাওলানা এনামুল হক বহরগ্রামী, মাওলানা জুনাইদ আহমদ কিয়ামপুরী।

গতকাল আলিয়া মাঠ  উলামায়ে কেরামের উপস্থিতিতে কানায় কানায় পুর্নছিলো।  মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরীর বয়ানের সময় বিভিন্ন শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত উয়ে উঠে আলিয়া মাদ্রাসার ময়দান। মনচ থেকেও এসময় হেফাজতে ইসলামের শ্লোগান দেওয়া হয়।
পরিশেষে আল্লঅমা আব্দুল মোমিন শায়খে ইমামবাড়ীর আখেরী বয়ান ও মোনাজাতের মাধ্যমে ৪০ সালা দস্তারবন্দী মহাসম্মেলনের সমাপ্তীঘটে।
জামেয়ার মরহুম প্রতিষ্ঠাতা মুহতামিম মাওলানা আকবর আলীর আত্মার মাগফেরাত দেশ ও জাতির সার্বিক মঙ্গল কামনায় বিশেষ মোজাতে অংশ নেন  লাখো  জনতা। #

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now