শীর্ষ শিরোনাম
Home » বিভিন্ন জেলা-উপজেলা » লেগুনা চাপায় আহত ছাত্রের মৃত্যু, বিয়ানিবাজারে বিক্ষুদ্ধ জনতার অবরোধ

লেগুনা চাপায় আহত ছাত্রের মৃত্যু, বিয়ানিবাজারে বিক্ষুদ্ধ জনতার অবরোধ

bianibazar-y
আব্দুল্লাহ আল ইমরান চৌধুরী,সিলেট রিপোর্ট : সপ্তগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ট শ্রেণীর আহত শিক্ষার্থী মারাযাওয়ার খবর পেয়ে এলাকায় মাইকিং করে মানববন্ধনের আহবান জানানো হয়েছে।  শনিবার দুপুরে সপ্তগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সিলেট-বিয়ানীবাজার অভ্যন্তরিণ মহাসড়ক সড়ক ও শেওলা – জকিগঞ্জ রোড টানা ৬ ঘন্টা অবরোধ করলে উভয় পাশের দীর্ঘ যানজট দেখা দেয়। পরে স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে শিক্ষার্থীরা অবরোধ প্রত্যাহার করে।
জানা যায়, উপজেলার দুবাগ ইউনিয়নের সপ্তগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে স্বাদ কোম্পানি একটি লেগুনার চাপায় গত ৬ সেপ্টেম্বর আহত হয়। ১৭ দিন সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে বৃহস্পতিবার রাতে শিক্ষার্থী ইব্রাহীম মঞ্জুর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।   শুক্রবার দশ ঘটিকার সময় গ্রামের প্রাইমারী বিদ্যালয় মাঠে জানায়ার নামায অনু্ষ্টিত হয় । নিহত স্কুল ছাত্র দুবাগ ইউনিয়নের হাজড়া পাড়া ( বরইআইল ) এলাকার আতাবুর রহমানের পুত্র। শনিবার সহপাঠীর মৃত্যুতে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সিলেট বিয়ানীবাজার ও শোওলা জকিগঞ্জ  অভ্যন্তরিণ মহা সড়কের মইয়াখালি হতে  জিরো পয়েন্ট এলাকায় মানববন্ধন ও মিছিল বের করে । এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা উত্তেজিত হয়ে বিয়ানীবাজার সিলেট ও শেওলা জকিগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে। এ সময় শিক্ষার্থীরা চালক জাবেদের ফাঁসি দাবি করে স্লোগান দেয় এবং সড়কে টায়ার জালিয়ে রাখে। শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধে ব্যস্ততম এ সড়কের উভয় পাশের দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আসাদুজ্জামান, বিয়ানীবাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আবুল বাশার বদরুজ্জামান ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের তিনি বলেন, দায়ি চালক ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া নিহত শিক্ষার্থীর নামে স্কুলের লাইব্রেরীর নামকরণ এবং বিদ্যালয় সংলগ্ন সড়কের উভয় পাশের গতিরোধক স্থাপন করা হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা অবরোধ প্রত্যাহার করলে সড়কে যান চলাচল এক ঘন্টা পর স্বাভাবিক হয়। বিয়ানীবাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আবুল বাশার বদরুজ্জামান বলেন, ঘটনার দিন শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী ঘাতক চালক জাবেদ আহমদ ও গাড়ি আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছেন। চালক জাবেদ জেলহাজতে এবং গাড়ি বিয়ানীবাজার থানার হেফাজতে রয়েছে। এ ঘটনায় স্কুল ছাত্র ইব্রাহিমের চাচা মাতাবুর রহমান ৬ সেপ্টেম্বর বিয়ানীবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এদিকে মানববন্ধনকে সফলকরার লক্ষে পইল – মইয়াখালী আর্দশ যুব সমাজ  ও খাড়াবড়া স্টুডেন্ট পার্টির পক্ষ হতে একঝাক তরুন মিছিলের মানববন্ধনে যোগ  দেয় ।  এছাড়া ও উপস্তিত ছিলেন উত্তর মইয়াখালী-পইল যুব সমাজের সভাপতি শরিফ আহমদ চৌধুরী, সহ-সেক্রেটারি মুহাম্মদ নাঈম চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক  সুলতান চৌধুরী,  অর্থ সম্পাদক  ফাহিম চৌধুরী,সিলেট রিপোর্টের প্রতিনিধি আব্দুল্লাহ আল ইমরান চৌধুরী সহ অন্যান্যরা।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now