শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » বিশ্ব পর্যটন দিবসে সিলেটে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

বিশ্ব পর্যটন দিবসে সিলেটে র‌্যালি ও আলোচনা সভা


SONY DSC

SONY DSC

সিলেট রিপোর্ট: আজ বিশ্ব পর্যটন দিবস। জাতিসংঘের বিশ্ব পর্যটন সংস্থার (ইউএনডাব্লিউটিও) উদ্যোগে ১৯৮০ সাল থেকে প্রতিবছর ২৭ সেপ্টেম্বর দিবসটি বিশ্বে পালিত হয়ে আসছে। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘সকলের জন্য পর্যটন: সার্বজনীন পর্যটনের অভিগম্যতা’।
বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। 
দিবস উপলক্ষে সিলেট জেলা প্রশাসনের আয়োজনে  সিলেটে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।   মঙ্গলবার দুপুরে সিলেটের জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে র‌্যালি বের হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভার মাধ্যমে শেষ হয়। আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. শহিদুল ইসলাম চৌধুরী জানিয়েছেন, সিলেটের পর্যটন স্পটগুলোর দিকনির্দেশনা সমৃদ্ধ একটি অ্যাপস্ নির্মাণ করা হচ্ছে। আগামী মাসে এই অ্যাপস উদ্বোধন করা হবে। জেলা প্রশাসনের ওয়েব সাইটে অ্যাপসটি পাওয়া যাবে। পর্যটকরা এখান থেকে সঠিক দিকনির্দেশনা পাবেন। শীঘ্রই জাফলং ও কোম্পানীগঞ্জ সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করা হবে।

বিভিন্ন দেশের তুলনায় বাংলাদেশে পর্যটনের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। প্রাকৃতিক সম্পদ সমৃদ্ধ সিলেটেও বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে। এসব সম্ভাবনাকে সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে কাজে লাগাতে হবে। সরকার এসব সম্ভাবনা কাজে লাগাতে আন্তরিকভাবে কাজ করছে।

তিনি আরো জানান, সম্প্রতি খোঁজ পাওয়া জলাবন মায়াবনকে নিয়ে বন বিভাগ এবং জেলা প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে। জানা গেছে, সেখানে বিলুপ্ত কিছু প্রাণীর অস্তিত্ব পাওয়া যেতে পারে। সিলেটে একটি ইকোমিক জোন হলে এখানকার পর্যটন শিল্প বিকশিত হওয়ার সুযোগ তৈরি হবে।

আলোচনা সভায় আরো জানানো হয়, সিলেটের পর্যটনের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে গোয়াইনঘাটে ৯০ একর জায়গয় ইকো-ট্যুরিজম পার্ক করার প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। হবিগঞ্জের দ্যা প্যালেস কর্তৃপক্ষের সাথে সিলেট জেলা প্রশাসনের সাথে আলোচনা চলছে জাফলংয়ে একটি তারকা মানের হোটেল বা রিসোর্টস নির্মাণের।  সিলেটে অনেক উন্নতমানের হোটেল নির্মাণ হচ্ছে। পুরানা জেলখানায় চিড়িয়াখানা নির্মাণ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এজন্য মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হচ্ছে শিগগিরই।

তিনি আরো  বলেন, পর্যটন একটি শিল্প। বাংলাদেশে পর্যটন বিকাশে সরকার কাজ করছে। বিভিন্ন ক্লাব, ব্যক্তি এ নিয়ে কাজ করছে। পর্যটন শিল্পের বিকাশ না ঘটালে অথনৈতিক উন্নয়ন সাধিত হবে না। এজন্য পর্যটকদের নিরাপত্তা, যোগাযোগসহ সার্বিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।

সিলেট ট্যুরিস্ট ক্লাবের সভাপতি হুমায়ুন কবির লিটনের পরিচালনায় অনুষ্টিত  আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন  বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন সিলেট অঞ্চলের ব্যবস্থাপক জাহিদ হোসেন।

অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন আটাব সিলেট জোনের  সভাপতি আব্দুল জব্বার জলিল, সিলেট হোটেল এন্ড গেস্ট হাউজ ওনার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ, সিলেট চেম্বারের পরিচালক এটিএম শোয়েব, বিশিষ্ট সাংবাদিক আফতাব চৌধুরী, ট্যুরিস্ট পুলিশ সিলেটের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুন নূর।

আরো বক্তব্য রাখেন সিলেট ট্যুরিস্ট ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম, দৈনিক সিলেটের ডাক এর সাহিত্য সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল মুকিত অপি, শাহজালাল ট্যুরিস্ট সোসাইটির সভাপতি আব্দুল ওয়াদূদ, এমসি কলেজ ট্যুরিস্ট ক্লাবের সহ-সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক প্রমুখ।

র‌্যালীতে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক উত্তর পূর্বের প্রধান সম্পাদক জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আজিজ আহমদ সেলিম, দৈনিক সবুজ সিলেটের  বার্তা সম্পাদক সামিন মাহমুদ প্রমুখ।

সিলেটের এই র‌্যালি ও আলোচনাসভা বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসনকে সহযোগিতা করে বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন সিলেট, আটাব সিলেট জোন, ট্যুরিস্ট পুলিশ সিলেট, সিলেট ট্যুরিস্ট ক্লাব, হোটেল এন্ড গেস্ট হাউজ ওনার্স এসোসিয়েশনসহ পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now