শীর্ষ শিরোনাম
Home » জাতীয় » প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভ্যর্থনা,কড়া সতর্কতা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভ্যর্থনা,কড়া সতর্কতা

kuril-0320160930165647ee
ডেস্ক রিপোর্ট: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে তার বাসভবন গণভবন থেকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত সড়কে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তাকে সংবর্ধনা জানাতে সড়কের দুই পাশে অপেক্ষারত দলের নেতাকর্মীদের সুশৃঙ্খলভাবে দাঁড় করিয়ে পরিস্থিতি দেখভাল করছেন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বেলা ৩টা থেকেই সড়কে পোশাকধারী সদস্যদের পাশাপাশি সাদা পোশাকে বিপুল সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের দেখা যায়।   গণভবন থেকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত সড়কের দুই পাশে সমবেত হয়েছেন আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনে নেতাকর্মী এবং শুভানুধ্যায়ীরা।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বেলা ৩টার পর থেকে বিভিন্ন স্থান থেকে আগত নেতা্কর্মীরা রাস্তার দু’পাশে অবস্থান নিতে দেখা যায়।

যুক্তরাজ্য, কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টা ২০ মিনিটে বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা ছিলো প্রধানমন্ত্রীর। তবে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী এমিরেটসের ইকে-৫৮৬ ফ্লাইটটি বিলম্বিত হওয়ার করণে সন্ধ্যা ৬টা ৪৮ মিনিটে পৌঁছানোর কথা রয়েছে।

বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত সড়ক ঘুরে দেখা যায়, বেলা ৩টার পর থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন থানা, ওয়ার্ড ও মহল্লা থেকে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা ও স্বাগত জানাতে রাস্তার দু’পাশে অবস্থান নিয়েছেন। ব্যানার -ফেস্টুন হাতে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে তারা বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছেন। আবার অনেক নেতাকর্মীকে মোটরসাইকেলে এবং ট্রাকে রাস্তায় শোডাউনও দিতে দেখা যায়।

 

বনানী থেকে স্টাফ করেসপন্ডেন্ট শেখ জাহিদুজ্জামান জানান, প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে বনানী থেকে মহাখালী পর্যন্ত রাস্তা ফাঁকা থাকতে দেখা যায়। তবে রাস্তার দু’পাশে পুলিশি নিরাপত্তার সঙ্গে আওয়ামী লীগসহ এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন প্লাকার্ড হাতে দাঁড়িয়ে আছেন। সংবর্ধনা জানাতে বনানীতে গুলশান থানা আওয়ামী লীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর সেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা অংশ নিয়েছেন।

কুড়িল বিশ্বরোড এলাকা থেকে সিনিয়র স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট মান্নান মারুফ জানান, সেখানে রাস্তার দু’পাশে ব্যানার-ফেস্টুনসহ ক্ষমতাসীন দল ও এর অসংগঠনের নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দিতে অপেক্ষা করছেন। এ সময় বদ্যযন্ত্রের তালে-তালে ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুখরিত হয় সড়কের দুইপাশ।

বিমানবন্দর এলাকা থেকে বিশেষ করেসপন্ডেন্ট শামীম খান জানান, প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দিতে বেলা সোয়া ৪টার দিকে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিমানবন্দরে ছুটে এসেছেন আওয়ামী লীগ ভক্ত ও সমথর্করা। হাজার-হাজার মানুষের ভিড়ে এ সময় ঢাকা থেকে টঙ্গীমুখী সিমিত আকারে যান চলাচল করতে দেখা যায়। অপরদিকে, টঙ্গী থেকে ঢাকামুখী যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বিজয় সরণি এলাকা থেকে সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট মহিউদ্দিন মাহমুদ জানান, বিজয় সরণি থেকে গণভবন পর্যন্ত বিপুল সংখ্যক আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী প্রধানমন্ত্রীর আগমণের অপেক্ষায় প্রহর গুণছেন। তারা ঢাক-ঢোল বাজিয়ে এবং ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে আনন্দে মেতেছেন। অপরদিকে, খামারবাড়ি থেকে মিরপুর সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এ সময় রাস্তার একপাশে তীব্র যানজট দেখা যায়।

 

দলীয় সূত্রে জানা যায়, সংবর্ধনা সফল করতে বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত আটটি পয়েন্ট নির্ধারণ করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ও সর্বস্তরের জনগণ সংবর্ধনা দেবেন বিমানবন্দর থেকে খিলক্ষেত এলাকায়।

কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি ও এ কে এম রহমতউল্লাহ এমপি খিলক্ষেত থেকে কুড়িল ফ্লাইওভার পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া সংবর্ধনায় নেতৃত্ব দেবেন।

এদিকে, কুড়িল ফ্লাইওভার থেকে হোটেল রেডিসন পর্যন্ত রয়েছেন আসলামুল হক আসলাম এমপি ও ইলিয়াছ উদ্দিন মোল্লা এমপি। হোটেল রেডিসন থেকে চেয়ারম্যান বাড়ী, মহাখালী ফ্লাইওভার এলাকায় রয়েছেন বনানী, গুলশান থানা আওয়ামী লীগ, সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এবং সর্বস্তরের জনগণ। মহাখালী ফ্লাইওভার থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় পর্যন্ত রয়েছেন জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি ও আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি। এছাড়া, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে কেন্দ্রীয় ১৪ দল, ঢাকা মহানগর ১৪ দল, স্বাধীনতা চিকিত্সক পরিষদ, ডাক্তার ও নার্সরা উপস্থিত রয়েছেন।

উল্লেখ্য, কানাডা ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফরকালে বিভিন্ন দেশের সরকার প্রধান, রাজনৈতিক, সামাজিক নেতাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফলপ্রসূ বৈঠক করেন, জাতিসংঘের ৭১তম অধিবেশনে ভাষণ দেন। সেই সঙ্গে দক্ষ রাষ্ট্র পরিচালনা ও বহুমাত্রিক অবদান স্বরূপ জাতিসংঘ পদক ‘প্ল্যানেট ৫০-৫০ চ্যাম্পিয়ন’ ও ‘এজেন্ট অব চেঞ্জ অ্যাওয়ার্ডে’ ভূষিত হন শেখ হাসিনা।

কানাডায় গ্লোবাল ফান্ড এবং যুক্তরাষ্ট্রে জাতিসংঘের ৭১তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে গত ১৪ সেপ্টেম্বর ঢাকা ছেড়েছিলেন তিনি।

–বাংলানিউজ

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now