শীর্ষ শিরোনাম
Home » হবিগঞ্জ » মাধবপুরে জীবন দিযে কলেজ ছাত্রীর প্রেমের খেশারত !

মাধবপুরে জীবন দিযে কলেজ ছাত্রীর প্রেমের খেশারত !

imagesজাকারিয়া চৌধুরী: প্রেম করে বিয়ের দুই মাস পেরুতে না পেরুতেই মাধবপুর উপজেলার বহরা ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামে শ্বশুরবাড়িতে খুন হয়েছে জলি আক্তার নামে শায়েস্তাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের এক ছাত্রী। পুলিশ সন্দেহভাজন হিসেবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত জলি আক্তারের দুই জা’ ও এক ননদকে আটক করেছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার শায়েস্তাগঞ্জ পৌর এলাকার নিজগাঁও গ্রামের আরব আলীর কন্যা, শায়েস্তাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের বিএসএস প্রথম বর্ষের ছাত্রী জলি আক্তারের (২০) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেছিল মাধবপুর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের আইয়ুব আলীর পুত্র রংমিস্ত্রি মঙ্গল মিয়া (২৪)। শায়েস্তাগঞ্জ এলাকায় রংমিস্ত্রির কাজ করতে এসে জলির সাথে মঙ্গল মিয়ার পরিচয় থেকে প্রেম হয়। এক পর্যায়ে তাদের সম্পর্কের বিষয়টি জলির পরিবারের লোকজন জানতে পারলে তারা জলিকে গালমন্দ করেন। এ পরিস্থিতিতে জলি তার প্রেমিক মঙ্গল মিয়ার সাথে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় জলির পিতা আরব আলী শায়েস্তাগঞ্জ থানায় মঙ্গল মিয়াসহ তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরবর্তীতে মুরুব্বীদের মধ্যস্থতায় মান-সম্মানের কথা ভেবে জলির পিতা এ সম্পর্ক মেনে নেন। দুই মাস আগে সামাজিকভাবে তাদের বিয়ে দেয়া হয়।

সম্প্রতি মঙ্গল মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন বিভিন্ন কারণে জলির উপর নির্যাতন চালায়। বিষয়টি জলি তার পিতাকে একাধিকবার জানিয়েছে।  বৃহস্পতিবার রাতে জলি তার মামা নাসির মিয়াকে জানায়, শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে মারপিট করছে। এরপর থেকে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। ওইদিন রাত ২টায় মঙ্গল মিয়া ফোন করে জলির স্বজনদের জানায় জলি বিষপান করেছে। খবর পেয়ে শুক্রবার সকালে মঙ্গলের বাড়িতে গিয়ে জলিকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান তার স্বজনরা। এ সময় মঙ্গল মিয়ার দুই ভাবী ছাড়া পরিবারের অন্য সদস্যরা গা ঢাকা দেয়। এতে তাদের সন্দেহ হলে বিষয়টি তারা মাধবপুর থানা পুলিশকে অবগত করেন। খবর পেয়ে শুক্রবার বিকেলে এসআই মমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশ উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। সেই সাথে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মঙ্গল মিয়ার দুই ভাবী ও তার বোনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।

জলির মামা নাসির মিয়া জানান, জলিকে গলা টিপে হত্যা করেছে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন। তার নাক-মুখ দিয়ে রক্ত ঝড়ছিল বলেও তিনি জানান। এ ব্যাপারে এসআই মমিনুল ইসলাম জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন জনকে আটক করা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now