শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » ডাকে সাড়া দিলেন খাদিজা, খাবারও খেলেন

ডাকে সাড়া দিলেন খাদিজা, খাবারও খেলেন

image-3759
ডেস্ক রিপোর্ট:
ছাত্রলীগ নেতার চাপাতির আঘাতে গুরুতর আহত সিলেট সরকারি মহিলা কলেজ ছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিসের শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে। তাকে এখন মুখে নরম খাবার দেয়া হচ্ছে। আজ মঙ্গলবার সকালে তাকে পুডিং খেতে দেয়া হয় এবং একটু সময় নিয়ে তিনি তা খানও। আহত হওয়ার ১৫ দিন পর এই প্রথম মুখে খাবার খেলেন তিনি।
গত ৩ অক্টোবর তাকে চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করেন শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতা বদরুল। প্রথমে তাকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরদিন রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। খাদিজা আজ মঙ্গলবার তার বাবা মাশুক মিয়ার ডাকে সাড়া দেন এবং বাবার দিকে মুখ ফিরে তাকান।
মঙ্গলবার দুপুরে খাদিজার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মামলার অগ্রগতি নিয়ে কথা বলেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও  সিলেট নগরীর শাহপরান থানার উপ-পরিদর্শক হারুনুর রশীদ।
পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে তিনি ঢাকাটাইমসকে বলেন, মামলা সংক্রান্ত কাজে খাদিজার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আলাপ হয়েছে। সকালে তাকে খাবার হিসেবে পুডিং দেওয়া হয় এবং তিনি তা খেয়েছেন। খাদিজার বাবা জানিয়েছেন, খাদিজার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। তিনি পরিবারের সদস্যদের চিনতে পারছেন।
হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, খাদিজার অনুভূতি ফিরে আসছে। তবে এখনও তার বাম-পা ও হাত কাজ করছে না। তার শরীরের অন্যান্য অংশের ব্যথার অনুভূতি ফিরে এসেছে।
কলেজছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসের মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর চার অক্টোবার স্কয়ারের চিকিৎসকরা বলেছিলেন, খাদিজার বেঁচে থাকার সম্ভাবনা পাঁচ ভাগ। চার অক্টোবর হাসপাতালের নিউরো সার্জন ডা. রেজাউল সাত্তার সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, ‘খাদিজার মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। তাঁকে ৭২ ঘণ্টা নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। ’হাসপাতালের সহকারী পরিচালক মির্জা নাজিম উদ্দিন বলেন, ‘এলোপাতাড়ি কোপে তাঁর মস্তিষ্কে  আঘাতা গুরুতর এবং তার বেঁচে থোকার সম্ভাবনা মাত্র ৫ শতাংশ।’
গত ৩ অক্টোবর বিকালে সিলেটের এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে সরকারি মহিলা কলেজের ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী খাদিজা আক্তার নার্গিসের ওপর হামলা চালায় শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শেষবর্ষের ছাত্র ও শাবি ছাত্রলীগের সহসম্পাদক বদরুল আলম। পরে স্থানীয়রা খাদিজাকে উদ্ধার করে ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তার মাথায় অস্ত্রোপচার করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে মঙ্গলবার ভোরে খাদিজাকে রাজধানী ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে আনা হয়। বর্তমানে তাকে হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষন কেন্দ্রে (আইসিইউতে) রাখা হয়েছে।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now