শীর্ষ শিরোনাম
Home » আর্ন্তজাতিক » মেসি-নেইমারকে ছাড়াই বার্সার বড় জয়

মেসি-নেইমারকে ছাড়াই বার্সার বড় জয়

সিলেটরিপোর্ট: কোপা দেল রের শেষ ষোলোর খেলায় প্রথম লেগে এলচের বিপক্ষে ৫-০ গোলে এগিয়ে ছিল বার্সেলোনা। তাই দ্বিতীয় লেগে কোনোমতে ড্র কিংবা কম ব্যবধানে হারলেও চলত! যে কারণে ম্যাচটি হয়তো সহজভাবেই নিয়েছিলেন দলটির কোচ লুইস এনরিক। দ্বিতীয় লেগে লিওনেল মেসি, নেইমার ও লুইস সুয়ারেজকে বিশ্রামে রেখেছিলেন তিনি।

কিন্তু মেসি-নেইমারকে ছাড়াই দ্বিতীয় লেগের খেলায় এলচের বিপক্ষে ৪-০ গোলের বড় জয় পেয়েছে বার্সা। আর তাতে দুই লেগ মিলে ৯-০ গোলের ব্যবধানে জিতে কোয়ার্টার ফাইনালের খেলা নিশ্চিত করেছে কাতালান ক্লাবটি।

কিন্তু বার্সার জন্য আসল পরীক্ষা অপেক্ষা করছে ওই কোয়ার্টার ফাইনালেই। কেননা সেখানে তাদের মুখোমুখি হতে হবে শক্তিশালী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের। আর এই বাধা পেরুতে পারলেই বোধ হয় কোপা দেল রের শিরোপা জেতা বার্সার জন্য সময়ের ব্যাপার হয়ে দাঁড়াবে!

বৃহস্পতিবার রাতে এলচের বিপক্ষে মাঠে নামার আগেই মেসি ও নেইমারকে বিশ্রামের কথা জানিয়েছিলেন বার্সা কোচ লুইস এনরিক। কিন্তু লুইস সুয়ারেজের খেলানো নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি তিনি। ম্যাচ শুরু হওয়ার পর দেখা গেল সেরা একাদশে নেই উরুগুইন সুপারস্টারও!

বলতে গেলে একদম আনকোড়া আক্রমণভাগ নিয়েই লড়াইয়ে নেমেছিলেন বার্সা বস। যেখানে রাখা হয়েছিল পেদ্রো রড্রিগেজ, মুনির আল হাদ্দাদি ও আদামা তোরাওরিকে। শেষের নামটি বেশ অপরিচিত মনে হবে অনেকের কাছে। কিন্তু না, এই আক্রমণভাগই মান রেখেছে এনরিকের।

এলচের মাঠে গুনে গুনে চারবার গোল উদযাপন করেছেন পেদ্রো-বরার্তো-ম্যাথিউরা। এদিন বার্সার খেলোয়াড়দের দেখে অনেকটা নির্ভারই মনে হয়েছে। সুযোগ পেয়ে তা হাতছাড়াও করেননি। সব মিলে দুর্দান্ত একটি ম্যাচ উপহার দিয়েছেন ভক্তদের।

খেলার ২০ মিনিটের মাথায় বার্সাকে এগিয়ে দেন সাচ্চা ডিফেন্ডার থেকে স্ট্রাইকার বনে যাওয়া জার্মেই ম্যাথিউ। তার করা গোলটি ছিল অসাধারণ। ২৫ গজ দূরত্ব থেকে ফ্রি-কিকে এলচের জালে বল জড়ান তিনি।

ম্যাচের ৪০ মিনিটে বার্সার দ্বিতীয় গোলটিও ছিল নজরকাড়ার মতো। এবার মন্টোয়ার বাড়ানো বল ধরে ২০ গজ থেকে দূরপাল্লার শটে গোলের দেখা পান বার্সার তরুণ মিডফিল্ডার সার্জিও রবার্তো।

এর ঠিক তিন মিনিট পর আবারও এলচের জালে বল জড়ায়। এ সময়ে পেনাল্টির সুযোগ কাজে লাগাতে ভুল করেননি পেদ্রো রদ্রিগেজ। তার গোলে বিরতির আগে সফরকারীরা এগিয়ে যান ৩-০ ব্যবধানে।

আর এলচের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন আদ্রিয়ানো। ম্যাচের অন্তিমলগ্নে (৯০+মিনিট) লক্ষ্যভেদে সফল হন ব্রাজিলিয়ান এই ডিফেন্ডার।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now