শীর্ষ শিরোনাম
Home » কলাম » মুফতি আব্দুল আউয়াল উয়াইসী (রহ) চলে গেলেন

মুফতি আব্দুল আউয়াল উয়াইসী (রহ) চলে গেলেন

মুহাম্মদ রুহুল আমীন নগরী: দারুল এরফান এর প্রতিষ্ঠাতা ও জামিয়া মাদানীয়া মান্ডা (মনখার বাড়ী) মাদ্রাসা
র প্রতিষ্ঠাতা মুহতামিম মুফতি আব্দুল আউয়াল চৌধুরী উয়াইসী আর নেই। তিনি গত ২১ মার্চ ২০১৫ সকাল ৬টায় সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। ঐ দিন বিকেলে রাজধানীর সবুজবাগ, মান্ডায় তার প্রতিষ্ঠিত জামিয়া মাদানীয়া মান্ডা (মনখার বাড়ী)  মাদরাসা সংলগ্ন মসজিদে নামাজে জানাজা শেষে তাকে মাদরাসা প্রাঙ্গণে দাফন করা হয়। মরহুম মাওলানা আবদুল আউয়াল উয়াইসি দ্বীনের বহুবিদ খেদমতের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলেন। মাদ্রাসা পরিচালনার পাশাপাশি সমাজসেবা,পীরমুরিদীর সাথে সাথে রাজনীতিতে তার অবদান চীর স্মরণীয় হয়ে থাকবে। তিনি ছাত্র জীবন থেকেই জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। ২০০২ সালে ঢাকা মহানগর জমিয়তের সভাপতির দায়িত্ব প্রাপ্ত হন। ঢাকাস্থ মুফতি বোর্ডের সদস্য ছিলেন। তিনি জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের পক্ষ থেকে খেজুরগাছ প্রতীক নিয়ে হবিগঞ্জ -২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসন থেকে ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করেছিলেন।
জন্ম: ১৯৫৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর রোজ শুক্রবার হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং থানার শাহপুর গ্রামের এক সম্ভান্ত্র চৌধুরী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মরহুম আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান ওরফে মান্নার মিয়া, মাতা মরিয়ম বিবি।
নিজ এলাকার ইমামবাড়ী মাদ্রাসায় দীর্ঘ ৬ বছর মাওলানা রমিজ উদ্দীনের তত্তাবধানে থেকে প্রাথমিক শিক্ষা লাভের পর ঢাকার বড়কাটারা চকবাজার আশ্রাফুল উলুম মাদ্রাসায় মুফতি ফয়জুল্লাহ (র)এর খলিফা মাওলানা আব্দুর রশীদ এর তত্বাবধানে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা লাভেরপর উচ্চা শিক্ষা লাভের জন্য চলে যান পাকিস্তান। পাকিস্তানের করাচিতে অবস্থিত জামিয়া ফারুকীয়ায় র্দীঘ পাচঁ বছর মাওলানা সলিমুল্লাহ খান , মুফতি রশীদ আহমদ ও মুফতি নিজাম উদ্দীন শামজাই এর তত্বাবধানে শিক্ষাজীবন শেষ করে সেখানেই শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত হন। তখনই আল্লামা ইয়ার খান (র)এর নিকট বায়াত গ্রহণ করেন এবং নকশে বন্দিয়ায়ে উয়াইসিয়া তরিকায় জিকিরের মেহনত করে কিছু দিনপরে ইজাজাত হাসিল করেন। তার পর পবিত্র হজ্ব পালন শেষে দেশে ফিরে ১৯৯০ সালে জামিয়া মাদানীয়া মান্ডা (মনখার বাড়ী) মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন। দারুল এরফান নামে তিনি একটি আধ্যাত্মিক সাধনালয় ও প্রতিষ্ঠা করেন।
পাকিস্তানের করাচিস্থ নিউটাউন শাখা দারুল উলুম বিলাল কলোনী, পবিত্র মক্কানগরীর মসজিদে তানয়ীমের নিকট একটি মাদ্রাসায় তিনি কিছু দিন শিক্ষকতা করেন। আধ্যাত্মিক ময়দানে ‘উয়াইসী’ সিলসালার একজন কামেলপীর ছিলেন। সেই তরিকার অনুস্মরণেই তাঁর নামের সাথে ন ‘উয়াইসী’ লক্ববটি ব্যবহার করতেন। ঢাকা,সিরাজগঞ্জ,চট্রগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে তিনি খানকা প্রতিষ্টা করেন। রমজান মাসসহ প্রতি মাসের র্নিধারিত তারিখে কমলাপুরের অদুরে মান্ডস্থ তাঁর খানকায় বিপুল সংখ্যক ভক্ত-মুরিদান আগমন হতো।
ব্যক্তি জীবনে মুফতি আব্দুল আউয়াল উয়াইসি ২ ছেলে ও ৩ কন্যা সন্তানের জনক। খলিফায়ে মাদানী হযরত মাওলানা শাহ আব্দুল মান্নান শায়খে গুনই (দা.বা) মরহুমের শ্বশুর। শায়খে গুনইয়ের কণ্যা সিদ্দিকা ওরফে ফাতিমার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।
জীবন সায়াহ্নে এসেও বাতিলের মোকাবেলায় মরহুম মুফতি আব্দুল আউয়াল ‘আউয়াল’ই ছিলেন। দু:খ জনক হলে ও সত্য যে, মুখলেস এই আল্লাহ ওয়ালা লোকটি ও রাজনৈতিক র্দুবৃত্তায়নের শিকার হয়েছিলেন। ঢাকা মহানগর জমিয়তের সভাপতির পদটি থাকা সত্বে ও তারঁ অগোচরেই অনেক সময় সভাসমাবেশ হতো! এজন্য প্রায়ই তিনি (এই লেখকের নিকট ) দু:খ প্রকাশ করতেন।
কযেক বছর আগে মাসিক মদীনা সম্পাদক মাওলানা মুহিউদ্দীন খান নয়াপল্টনস্থ স্বীয় অফিসে এক বৈঠকে আক্ষেপ করেই বলেছিলেন , উয়াসী একটা কর্মঠ লোক, এখানে কর্মঠ লোকের জায়গা কম’। এক যুগের ও বেশী সময় থেকে মরহুম উয়াইসীর সাথে আমার সিয়াছি সম্পর্ক। ঢাকায় গেলে তাঁর খানকায় মেহমান হতাম। তিনি খুশী হতেন। আমার নিকট অনেক পরিকল্পনার কথা বলতেন। বিশেষ করে নির্বাচনী আলাপ-আলোচনা হতো। একটি মাসিক ধর্মীয় পত্রিকা প্রকাশের পরিকল্পনা ছিলো। লেখালেখির মযদানে আমাকে উৎসাহিত করতেন। আমার কোন প্রকাশনা আছে কি না ,এসব খবর নিতেন। তাঁর হাতে কোন নতুন প্রকাশনা দিলে সম্মান জনক হাদিয়া দিতেন। ইন্তেকালের ৪/৫ দিন আগে মোবাইল করে সাংগঠনিক হালাত জানতে চান। নিজের অসুস্থার মধ্যেও সে দিন পবিত্র ওমরা পালনের প্র¯তুতির কথা বল্লেন। তাঁর সাথে এই ছিল আমার শেষ কথোপকথন। সৎসাহসী এই মর্দে মুজাহিদ আলেমেদ্বীনকে আজ খুব বেশী মিস করছি। আল্লাহপাক মরহুম উয়াসীকে জান্নাতের মেহমান হিসেবে কবুল করুন। আমীন।

 

সিলেট রিপোর্ট's photo.
Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now