শীর্ষ শিরোনাম
Home » রাজনীতি » ২ দিনের হরতাল জামায়াতের: রাজনৈতিক অঙ্গণে আবারো অশান্ত হাওয়া

২ দিনের হরতাল জামায়াতের: রাজনৈতিক অঙ্গণে আবারো অশান্ত হাওয়া

5656সিলেটে রিপোর্ট: আজ সোমবার রাতেই মুত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের সিনিয়র সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের ফাঁসি কার্যকর করা হতে পারে। সরকারের পক্ষ থেকে এমন ইঙ্গিতই দেয়া হচ্ছে। রায় ঘোষণার পর রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাটর্নি জেনারেল ও আইনমন্ত্রীর বক্তব্যে দণ্ড কার্যকরের বিষয়টি আরো স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।এদিকে কামারুজ্জামানের পরিবারের সদস্যদের কারাগারে তার সঙ্গে দেখা করার জন্য চিঠি দেয়া হয়েছে।আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার জন্য কামারুজ্জামান দুই-এক ঘণ্টা সময় পাবেন। যতো দ্রুত সম্ভব তার দণ্ড কার্যাকর করা হবে।’

এর আগে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমও কামারুজ্জামানের দণ্ড কার্যকরের ব্যাপারে একই কথা বলেছেন।

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের সিনিয়র সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের রিভিউ আবেদন খারিজ করে মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। সোমবার সকাল ৯ টা ৫ মিনিটে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন।

এদিকে রায় ঘোষণার পর কখন কামারুজ্জামানের দণ্ড কার্যকর করা হবে এ নিয়ে চলছিল নানা জল্পনা কল্পনা। রায় ঘোষণার পর সকালেই সংবাদ সম্মেলনে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ‘সরকার চাইলে যেকোনো সময় কামারুজ্জামানের দণ্ড কার্যকর করতে পারে। এ জন্য জেল কোডের বিধান প্রযোজ্য হবে না।’

তিনি আরো বলেন, ‘মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত কামারুজ্জমানের বিচার প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। ট্রাইব্যুনালের রায় হয়েছে। আপিল বিভাগের রায় হয়েছে। আপিল বিভাগের রিভিউ পিটিশনের রায় হয়েছে। এখন তার দু’টি বিষয় বাকি রয়েছে। রাষ্ট্রপতির কাছে তিনি প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না সেটা তাকে জানাতে হবে এবং আপন জনের সঙ্গে দেখা করা। এরপর কবে তার দণ্ড কার্যকরা করা হবে তা সরকার নির্ধারণ করবে।’

অ্যাটর্নি জেনারেলের বক্তব্যের কয়েক ঘণ্টা পর আইনমন্ত্রী আনিসুল হকও কামারুজ্জামানের রায় কার্যকরের ব্যাপারে একই কথা বললেন।

সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত জামায়াতের সিনিয়র সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের রায় যতো দ্রুত সম্ভব কার্যকর করা হবে।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার জন্য কামারুজ্জামান দুই-এক ঘণ্টা সময় পাবেন। আমার জানা মতে কারা কর্তৃপক্ষ তার আত্মীয়-স্বজনকে সাক্ষাতের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। এখন তার বেলায় যেহেতু জেল কোডের বিধান প্রযোজ্য নয়, তাই যতোদ্রুত সম্ভব তার রায় কার্যকর করা হবে।’

কামারুজ্জামানের রিভিউ আবেদন খারিজ হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশন করেছেন মন্ত্রী আনিসুল হক।

এদিকে কামারুজ্জামানের পরিবারের সদস্যদের কারাগারে তার সঙ্গে দেখা করার জন্য চিঠি দেয়া হয়েছে। কামারুজ্জামানের পরিবার জানিয়েছে বেলা বিকেলে তারা কারা কর্তৃপক্ষের চিঠি পেয়েছেন। চিঠিতে বিকেল ৫টার মধ্যে তাদেরকে দেখা করার জন্য বলা হয়েছে।

এছাড়া ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে চলছে কামারুজ্জামানের ফাঁসি কার্যকরের প্রস্তুতি। কারা সূত্রে জানা গেছে, কামারুজ্জামানের বিভিউ আবেদন খারিজ করে মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখার রায় ঘোষণার পর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে চলছে ফাঁসি কার্যকরের প্রস্তুতি। সরকারি নির্দেশ আসার পর যেন বিলম্ব না হয় সেজন্য কারা কর্তৃপক্ষ সব প্রস্তুতি প্রায় শেষ করে রেখেছে।

এদিকে, নোয়াখালী
জেলা শহর মাইজদীর সিনেমাহল এলাকায় শিবির ও পুলিশের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ও সংঘর্ষে ওমর ফারুক চৌধুরী (২৩) নামে এক শিবিরকর্মী নিহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পুলিশ দু’জনকে আটক করেছে।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের সিনেমাহল এলাকার মফিজ প্লাজার সামনে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ওমর ফারুক চৌধুরী নোয়াখালীর সদর উপজেলার কাদিরহানিফ ইউনিয়নের নুরুল আলমের ছেলে। তিনি নোয়াখালী পৌরসভা ৪নং ওয়ার্ড শিবিরের উপ-কমিটির সভাপতি ও শিবিরের সাথী। তিনি নোয়াখালী পাবলিক কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র।

আহতরা হচ্ছেন-সদর উপজেলা একাব্বরপুর গ্রামের নুরুল কাদের ছেলে রাছেল (২৪) ও শহরের মাইজদী বাজার এলাকার আবু তাহেরের ছেলে মো. রাকিব (২০)।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, জামায়াত নেতা কামরুজ্জামানের ফাঁসির রায় বহাল রাখার প্রতিবাদে শহরের সিনেমাহল এলাকায় একটি ঝটিকা মিছিল বের করে শিবিরের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি শহরের মফিজ প্লাজার সামনে আসলে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। এ সময় শিবিরের নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষ শুরু হয়।

মঙ্গল ও বুধবার জামায়াতের হরতাল

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে দলের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের রিভিউ খারিজ করে মৃত্যুদ-ের রায় বহাল রাখার প্রতিবাদে মঙ্গল ও বুধবার সারাদেশে হরতাল ডেকেছে জামায়াতে ইসলামী। সোমবার এক বিবৃতিতে দলের ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমাদ হরতালের এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন। বিবৃতিতে তিনি বলেন, সরকার জামায়াতকে নিশ্চিহ্ন করার উদ্দেশে পরিকল্পিতভাবে নেতৃবৃন্দকে হত্যা করার মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অস্থির হয়ে পড়েছে। মিথ্যা, সাজানো বায়বীয় অভিযোগে মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে সরকার ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দায়ের করে। দলীয় লোকদের দ্বারা স্বাক্ষ্য প্রদান করিয়ে কামারুজ্জামানকে হত্যা করার জন্য মৃত্যুদ-ে দ-িত করার ব্যবস্থা করে।
বিবৃতিতে বলা হয়, দেশবাসী আশা করেছিল রিভিউ আবেদনে তিনি ন্যায়বিচার পাবেন। আজ আদালতের প্রদত্ত রায়ে দেশবাসী হতাশ হয়েছে। ১৯৭১ সালে মুহাম্মদ কামারুজ্জামান উচ্চমাধ্যমিক শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। এ বয়সের একজন তরুণের বিরুদ্ধে সরকারের আনীত অভিযোগ কত গভীর ষড়যন্ত্রমূলক তা সকলের নিকট স্পষ্ট। কামারুজ্জামান সরকারের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। সরকার নেতৃবৃন্দকে হত্যা করে জামায়াতকে নিশ্চিহ্ন করার যে ষড়যন্ত্র করছে দেশের জনগণ তা কখনও বাস্তবায়ন হতে দেবে না।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now