শীর্ষ শিরোনাম
Home » প্রবাস » বৃটেনে বহুল আলোচিত তরুণ চিকিৎসা বিজ্ঞানী একজন সিলেটি আমরান

বৃটেনে বহুল আলোচিত তরুণ চিকিৎসা বিজ্ঞানী একজন সিলেটি আমরান

amranসিলেট রিপোট: রাতপোহালেই ৭ মে অনুষ্ঠেয় ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে লেবার দলের হয়ে এমপি পদে লড়ছেন একজন তরুণ প্রজন্সের আমরান।বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত। বয়স মাত্র ২৯ বছর। এত অল্প বয়সে বড় রাজনৈতিক দলের টিকিট আদায় করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি। বৃটেনের নিবাৃচনে সবৃকনিষ্ট প্রাথীৃ হিসেবেই এই আমরানই এখনই বিশ্বব্যাপী আলোচিত ।
বৃহস্পতিবার দেশটিতে সাধারণ নির্বাচন। এই নির্বাচনে দেশটির প্রধান তিনটি দল থেকে মোট ১১ জন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী এমপি পদে লড়ছেন। তাঁদের মধ্যে লেবার দল থেকে সাতজন, লিবারেল ডেমোক্র্যাটস দল থেকে তিনজন এবং কনজারভেটিভ দল থেকে একজন মনোনয়ন পেয়েছেন। এই ১১ প্রার্থীর মধ্যে অক্সফোর্ড পড়ুয়া আমরান বয়সে সবচেয়ে তরুণ। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি তাঁর দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়।
নর্থ ইস্ট হ্যাম্পশায়ার আসনে নির্বাচন করছেন আমরান। আসনটি কনজারভেটিভ দলের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। গতবার এখানে লেবার দলের অবস্থান ছিল তৃতীয়। এবার আমরানের চ্যালেঞ্জ দলের ভোট বাড়িয়ে নিজেকে প্রমাণ করা। লক্ষ্য অর্জনে কাজ করছেন তিনি। নির্বাচিত হলে বেতনের ২৫ শতাংশ অর্থ স্থানীয় বাসিন্দাদের কল্যাণে ব্যয় করার ঘোষণা দিয়ে ইতিমধ্যে সাড়া ফেলেছেন আমরান।

ব্রিটেনে জন্ম নেওয়া আমরানের আদি নিবাস বাংলাদেশের সিলেটের গোলাপগঞ্জে। চিকিৎসাবিজ্ঞানে পড়ালেখা করা আমরান এনএইচএস (জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা) ইংল্যান্ড শাখার ন্যাশনাল ডেলিভারি অফিসার। বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সঙ্গেও যুক্ত রয়েছেন তিনি। ২০১২ সালে যুক্তরাষ্ট্রে বারাক ওবামার নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেন এই তরুণ। একই বছর লন্ডনে অনুষ্ঠিত অলিম্পিকে সেরা স্বেচ্ছাসেবক হন আমরান।

তাঁর বিশ্বাস, একমাত্র লেবার পার্টিই ব্রিটেনের কর্মজীবী ও স্বল্প আয়ের মানুষের কল্যাণে কাজ করে। তিনি আরও বলেন, ‘রাজনীতিবিদেরা যা চাইবেন তা নয়, বরং জনগণ যা চাইবেন, তাই করবেন রাজনীতিবিদেরা।’ নিজের এমন বিশ্বাসের প্রতি ভোটাররা ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন বলে দাবি আমরানের। বিষয়টি তাঁকে বেশ আত্মবিশ্বাসী করে তুলেছে জানিয়ে আমরান বলেন, ‘জয়ের লক্ষ্য নিয়েই তাঁর প্রচারকাজ চলছে।’

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now

2 comments

  1. Thank for your honesty report I am proud of British bangladeshi amran .

  2. প্রতি
    সম্পাদক
    সিলেট রিপোর্ট (অন লাইন )
    সিলেট

    জনাব
    আপনার অন লাইন পত্রিকায় আমার ছবি সহ একটি মিথ্যা খবর ছাপানো হয়েছে যে ওয়ার্ক পারমিট দিয়ে আমি ২০০হাজার পাউন্ড হাতিয়ে নিয়েছি ও আমার লাইসেন্স বাতিল হয়ে গিয়েছে এর কুনোটাই সত্য নহে এবং নির্জলা মিথ্যা অপপ্রচার করা হচ্ছে ,আপনার এই বিষয়ে খবর ছাপানোর পূর্বে আমার বক্তব্য নেয়া নৈতিক দ্বায়িত্ব ছিলো একজন সাংবাদিক সম্পাক্দক হিসেবে,জানিনা কাদের দ্বারা প্ররোচিত হয়ে এই একপেশে নির্জলা মিথ্যা খবর ছাপিয়ে আমার মানহানী করে আপনার কি লাভ হলো ?লন্ডনে আমাকে যারা চিনেন তারা বলতে পারবেন প্রায় ১৬ বছর ধরে এই পূর্ব লন্ডনে আমি একজন বাংলাদেশী ব্যবসায়ী হিসেবে ব্যবসা করে যাচ্ছি কারো টাকা আত্বসাত করা কিম্বা কাউকে ক্ষতি গ্রস্ত করা আমার পক্ষে সম্ভব না এটা যারা আমাকে চিনেন তারা ভালো বলতে পারবেন,বরং আমার দ্বারা উপকৃত হয়েছেন শত শত মানুষ এটা আমি চ্যলেঞ্জ দিয়ে বলতে পারি,হলুদ সাংবাদিকতার কথা আমি শুনেছি আজ সেটার দ্বারা আমি নিজে আক্রান্ত হয়ে এই প্রতিবাদ পত্র টি আপনার অন লাইন পত্রিকায় ছাপানোর জন্য দাবি জানাচ্ছি যে ভাবে আমার বিরুদ্ধে এক তরফা নিউজ টি আপনি ছাপিয়েছেন ঠিক সমান ভাবে আমার এই প্রতিবাদ পত্র টি আপনি ছাপাবেন এবং দুঃখ প্রকাশ করে আপনার বক্তব্য দেবেন ,অন্যতায় আমি মানহানি মামলা সহ আইনানোগ ব্যবস্তা নিতে বাধ্য হবো ,এখানে উল্লেখ্য যে আমি ২০০৯ সনে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দিতা করে প্রায় ২২হাজার ভোট পেয়েছিলাম এবং বর্তমান যুক্তরাজ্য বিএনপির আভ্যন্তরীণ বিষয়ে আমারি নিজ এলাকার কিছু মানুষের সঙ্গে রাজনৈতিক বিরোধ রয়েছে যে বা যারা পিছনে থেকে এই অপপ্রচারে শামিল হচ্ছেন তাদের কে বলতে চাই সত্য জানুন আর সঠিক তথ্য না জেনে কারো বিরুদ্ধে এ ধরনের ঘৃণ্য অপ প্রচার করা থেকে বিরত থাকুন আর যাদের নাম উল্লেখ করেছেন তাদের সঙ্গে আমার অফিসে এধরনের কুনো ঘটনা ঘটেনি আর আমার ওয়ার্ক পারমিটের লাইসেন্স বাতিল হয়নি আমি কারো টাকা আত্বসাত ও করিনি এ বিষয়ে যেকুনো চেলেঞ্জ এর সম্মুখীন হতে আমিরাজি আছি ,

    ধন্যবাদ সহ

    এম এ কাদির
    লন্ডন

Leave a Reply

Your email address will not be published.