শীর্ষ শিরোনাম
Home » শীর্ষ সংবাদ » দিরাইয়ে জমিয়তের মহাসম্মেলনে আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জি :: স্বাধীন বাংলাদেশ হচ্ছে জমিয়ত ও দেওবন্দী উলামায়ে কিরামের আন্দোলনের ফসল

দিরাইয়ে জমিয়তের মহাসম্মেলনে আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জি :: স্বাধীন বাংলাদেশ হচ্ছে জমিয়ত ও দেওবন্দী উলামায়ে কিরামের আন্দোলনের ফসল

সিলেট রিপোর্ট: জমিয়তের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি শায়খুল হাদিস আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জি বলেছেন, আজকের স্বাধীন বাংলাদেশ হচ্ছে জমিয়ত ও দেওবন্দী উলামায়ে কিরামের আন্দোলনের ফসল, আর সেই জন্য আমাদের পরিচিতি হচ্ছে বাংলাদেশি। সেই সময় যদি ইংরেজদের বিরুদ্ধে উপমহাদেশের উলামায়ে কিরাম যুদ্ধ না করতেন, তবে আজকের বাংলাদেশ সৃষ্টি হতো না। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের ভেতরে নাস্তিকরা আস্তানা গেড়েছে, তারা সরকারের আস্কারায় দিন দিন ইসলামের বিরুদ্ধে মাথাচাড়া দিয়ে ওঠছে। সুতরাং সরকারকে এখনই তাদের

ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে। সোমবার বেলা ২টায় সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলা জমিয়তের উদ্যোগে আয়োজিত মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে জমিয়তের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি শায়খুল হাদিস আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। শাখার সভাপতি মাওলানা নাজিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রধানবক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন জমিয়তের কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও ইউকে জমিয়তের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা শুয়াইব আহমদ।
বক্তারা আরো বলেন, বর্তমান সরকারের মন্ত্রী পরিষদের অনেকেই আল্লাহ, মুহাম্মদ (সা), সাহাবায়ে কিরাম, ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে বিগত দিনে বক্তব্য দিয়ে তারা প্রমান করেছেন যে, এই সরকার ইসলামের নাম নিয়ে নাস্তিক্যবাদী মতবাদ প্রচারে লিপ্ত, বিগত দিন যদি ধর্মের অবমাননা করার দায়ে শাস্তি প্রদান করা হতো, তবে কুখ্যাত-কুলাঙার নাস্তিক লতিফ সিদ্দিকীদের জন্ম হতো না। ধর্মের অবমাননা করে অতীতে কেউই পার পায়নি, লতিফ সিদ্দিকীসহ তার সমর্থকরাও পার পাবেনা, তাদের বিচার যদি এ সরকার কঠোরভাবে না করতে পারে, তবে এদেশের জনগণ ইনশাআল্লাহ করবে। হজ্ব, মুহাম্মদ (সা), সাহাবায়ে কিরাম ও তাবলীগ জামায়াত নিয়ে লতিফ সিদ্দিকী যে অবমাননা কর বক্তব্য দিয়েছে, তার একমাত্র বিচার প্রকাশ্যে ফাঁসিতে ঝুঁলিয়ে হত্যা করতে হবে। বর্তমান সরকার লতিফ সিদ্দিকীর বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে তার সমালোচনা করে বক্তারা বলেন, সংবিধান সংশোধন করে ধর্ম অবমাননা কারীদের বিরুদ্ধে ফাঁসির আইন প্রণয়ন করতে হবে। বক্তারা বর্তমান সরকারকে অবৈধ সরকার উল্লেখ করে দেশব্যাপি হত্যা, খুন, ধর্ষণ, চাঁদাবাজি-টে-ারবাজি, ছাত্রলীগের অস্ত্রমহড়া, দখল-দুর্নীতি বন্ধ করে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন, অন্যথায় পদত্যাগ করে দেশকে বাঁচান। সময় থাকতেই সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করুন, আর না হয় পালাবার সুযোগ পাবেন না।
উপজেলা জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহিউদ্দিন ক্বাসিমী ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মুখতার হোসেন চৌধুরীর যৌথ পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জমিয়তের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসূফি, মাওলানা জুনায়েদ আল হাবীব, যুগ্ম মহাসচিব ও সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরী, মাওলানা তাফাজ্জুল হক আজিজ, সুনামগঞ্জ জেলা জমিয়তের সভাপতি প্রিন্সিপাল শায়খ মাওলানা আব্দুল বছির, সুনামগঞ্জ জেলা জমিয়তের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুশতাক আহমদ গাজীনগরী, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা যুব জমিয়তের সভাপতি মাওলানা তৈয়্যিবুর রহমান চৌধুরী, জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ রশিদ আহমদ, মাওলানা গিয়াস উদ্দিন, মাওলানা মাহবুবুল হক চৌধুরী, মাওলানা মাহমুদুল হাসান, মাওলানা আব্দুল মালিক চৌধুরী, মাওলানা আলী নূর, মাওলানা হাম্মাদ আহমদ, সৈয়দ সালিম আহমদ ক্বাসিমী, মাওলানা ইলিয়াছ আহমদ, মাওলানা মুখতার হোসেন চৌধুরী, মাওলানা হেলাল আহমদ, মাওলানা খালেদ আহমদ জায়ীম, মাওলানা আবিদুর রহমানসহ জেলা, উপজেলা ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দগণ বক্তব্য রাখেন। পরে জাতীয় নেতৃবৃন্দের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে খেলাফত মজলিস, জাতীয়তাবাদী উলামাদল ও বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলাম থেকে প্রায় অর্ধশত লোক জমিয়তে যোগদান করেন।

Share Button
Hello

এই ভিডিও প্লে করুন | video play now